কোচবিহারে নয়া কমিটি গঠন নিয়ে বিরোধ, পদ ছাড়ার হুমকি পুরশাসক ভূষণ সিংয়ের

নয়া কমিটি গঠন করা নিয়ে তাঁর সাথে আলোচনা করা হয় নি বলে অভিযোগ তুলে সাংগঠনিক পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর হুমকি দিলেন কোচবিহার পুরসভার প্রশাসক তথা শহর তৃণমূল কংগ্রেসের সহ সভাপতি ভূষণ সিং। আজই সাংবাদিক বৈঠক করে জেলা কমিটি সহ বেশ কিছু ব্লক ও অঞ্চল কমিটি ঘোষণা করেন তৃণমূল কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সভাপতি পার্থ প্রতিম রায়। নয়া কমিটিতে কোচবিহার শহর ব্লক কমিটির সহ সভাপতি পদে রাখা হয় ভূষণ সিংকে। এরপরেই সাংবাদিকদের ভূষণ বাবু জানান, এই কমিটি গঠন নিয়ে তাঁর সাথে কন রকম আলোচনা করা হয় নি।

কাজেই অনেকেই এমন রয়েছেন যাদের ওই কমিটিতে থাকা প্রয়োজন ছিল, তাঁদের নাম নেই কমিটিতে। তাই সাংগঠনিক কাজ করতে গিয়ে সমস্যায় পড়তে হবে। সেই কারণেই নতুন দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়াতে চাইছেন ভূষণ বাবু। শুধু তাই নয়, এই কমিটি গঠন নিয়ে জেলার বেশীর ভাগ বিধায়কদের সাথেও কথা বলা হয় নি বলে অভিযোগ করে ভূষণ বাবু। কোচবিহার শহর ব্লক কমিটিতে নিরঞ্জন দত্তকে সভাপতি করে ৯ জন সহ সভাপতি, ৭জন সাধারণ সম্পাদক ও ৪ জনকে সম্পাদক করা হয়েছে। ওই ৯জন সহ সভাপতির মধ্যে ভূষণ সিং রয়েছেন। এছাড়াও কোচবিহার পুরসভার ২০টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১১ এবং ১২ নম্বর ওয়ার্ড বাদ দিয়ে বাকি সব কটি ওয়ার্ড কমিটি গঠন করা হয়েছে।

শহর ব্লক কমিটি গঠনের পাশাপাশি বেশ কয়েকটি ওয়ার্ড কমিটি নিয়েও আপত্তি রয়েছে ভূষণ বাবুর। সম্প্রতি কোচবিহার এসেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের সুপ্রিমো তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি কোচবিহার রাসমেলা ময়দানে একটি কর্মী সভা করেন। ওই সভা মঞ্চে জায়গা না পেয়ে দলের জেলা সভাপতি পার্থ প্রতিম রায়ের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন ভূষণ বাবু। তাঁকে বাগে আনতে জেলার একাধিক তৃণমূল কংগ্রেস নেতাকে ময়দানে নামতে দেখা যায়। শেষ পর্যন্ত বিভিন্ন দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিতে দেখা যায় ভূষণ বাবুকে। সেই সমস্যার সমাধান না হতেই ফের কমিটি গঠন নিয়ে ফের তোপ দাগতে দেখা গেল ভূষণ সিংকে।