ফুড ডেলিভারিতে GST কমানোর দাবি বিভিন্ন মহলে, কমতে পারে বিরিয়ানি, পিৎজার দাম

করোনাকালে অনলাইন ফুড ডেলিভারী সংস্থার প্রতি মানুষের আস্থা বেড়েছে। রেস্তোরাঁতে সকলের সঙ্গে বসে খাওয়ার চেয়ে ফুড ডেলিভারি সংস্থাগুলির মাধ্যমে বাড়িতেই রেস্তোরাঁর খাবার আনিয়ে নিতে অনেকেই স্বচ্ছন্দ বোধ করছেন। কেন্দ্রও চাহিদা বুঝে ফুড ডেলিভারীর উপর ১৮ শতাংশ হারে জিএসটি বসিয়েছে। অর্থাৎ ফুড ডেলিভারি সংস্থার মাধ্যমে খাবার বাড়িতে আনিয়ে নিতে চাইলে গ্রাহককে অতিরিক্ত ১৮ শতাংশ হারে জিএসটি গুনতে হবে।

একই খাবার যদি তিনি রেস্তোরাঁতে বসে খান তাহলে তাকে ৫ শতাংশ হারে জিএসটি দিতে হবে। শীঘ্রই নতুন বাজেট পেশ করতে চলেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। নতুন বাজেট নিয়ে শিল্প সংস্থা গুলির প্রত্যাশা প্রচুর। ইতিমধ্যেই শিল্প সংস্থাগুলি তাদের বিভিন্ন দাবিগুলি কেন্দ্রের গোচরে আনতে শুরু করেছে। বিশেষত জিএসটি কমানোর দাবি নিয়েই সরব হয়েছে তারা।

অনলাইনে ফুড ডেলিভারি পরিষেবার ক্ষেত্রে যে সর্বোচ্চ পরিমাণ জিএসটি লাগু করা হয়েছে, তা আগামী অর্থবছরের বাজেটে কিছুটা কম করা হোক, এমনটাই দাবি জানানো হচ্ছে। বিভিন্ন রেস্তোরাঁর সম্মতি নিয়ে ফুড ডেলিভারি সংস্থাগুলি কেন্দ্রের কাছে এমনই দাবি জানিয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, অ্যাপ নির্ভর খাদ্য সরবরাহ ক্ষেত্রে অন্তত ৩০০ কোটি ডলার তথা ২১ হাজার কোটি টাকার বাজার রয়েছে ভারতে।

অনলাইন ফুড ডেলিভারীর সংস্থার দাবি, নতুন বাজেটে অনলাইনে ফুড ডেলিভারীর ক্ষেত্রে জিএসটির পরিমাণ কমানো হলে খাবারের দাম কমানো যাবে। কর্মসংস্থান বাড়বে। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সরকারের “ডিজিটাল ইন্ডিয়া” প্রকল্পকেও এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে। ফুড ডেলিভারি সংস্থার এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্র কি সিদ্ধান্ত নেয়, তা জানতে গেলে আপাতত পয়লা ফেব্রুয়ারি, বাজেট পেশ হওয়া অবদি অপেক্ষা করতে হবে।