বাবা আসতে ভুলে গিয়েছে, ভাইয়ের জন্মদিন একাই পালন করলেন সারা

সাইফ আলি খান সম্প্রতি হলেন আরেকবার পুত্র সন্তানের বাবা।। তিনি হলেন মোট চার সন্তানের পিতা। তিন পুত্র এবং কন্যার গর্বিত পিতা হলেন সাইফ আলি খান। সাইফ আলী খানের প্রথম স্ত্রী অমৃতার গর্ভ থেকে জন্ম নিয়েছে ইব্রাহিম এবং সারা আলি খান। সুখে কিছু বছর সংসার করার পর হঠাৎ করেই তাদের মধ্যে আসে মনোমালিন্য। দুই সন্তানসহ অমৃতাকে পরিত্যাগ করেন সাইফ আলি খান। কিছু বছর পরে তিনি বিয়ে করে নেন কারিনা কাপুরকে।

মায়ের কাছেই ছোটবেলা থেকে বড় হয়েছে ইব্রাহিম আমার সারা আলি খান। তবে বাবার সঙ্গে ভালো সম্পর্ক ছিল তাদের।বড় হবার পরে নবাব বাড়িতে যাতায়াত করতো দুই ভাইবোন। সৎমা কারিনা কাপুর খান এবং তৈমুরের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক বেশ ভালো। সব মিলিয়ে প্রাক্তন এবং বর্তমান কে নিয়ে সুখের সংসার করছেন সাইফ আলি খান।

তবে এবারে ইব্রাহিমকে জন্মদিন পালন করতে হলে বাবাকে ছাড়া।সাইফ আলি খান তার চতুর্থ সন্তান কে নিয়ে এখন ভীষণ ব্যস্ত। তিনি এখন রয়েছেন পিতৃ কালীন ছুটি তে। আপাতত স্ত্রী কারিনা কাপুর খান এবং দুই সন্তানকে দেখাশোনার দায়িত্বে রয়েছেন তিনি।তাই কোনভাবেই বড় ছেলে ইব্রাহিমের জন্মদিনে আসতে পারেননি তিনি।

কিন্তু বাবা নেই তো কি হয়েছে?মা এবং দিদিকে নিয়ে বাড়িতে জন্মদিন পালন করলেন ইব্রাহিম খান। চিরকালই দিদির সঙ্গে মিষ্টি সম্পর্ক ছিল ইব্রাহিমের। একই সঙ্গে তারা দুজনে বেড়ে উঠেছে। তাই দিদির সঙ্গে ছোটবেলা থেকেই সাইক্লিং করে, সুইমিং করে, ফটো শুট করে, দিন কেটে যায় তাদের। আবার প্রয়োজনে ভাইকে কফি কখনো করে দেয় সারা আলি খান, কখনো আবার নিজের সন্তানের মতো ভাত মেখে খাইয়ে দেয়।

ভাইয়ের জন্মদিনে নিজের হাতে কফি বানিয়ে ভাইয়ের সঙ্গে সারা জীবন থাকার অঙ্গীকার করলেন সারা আলি খান। সারা জীবন এই ভাবেই তিনি ভাইকে ভালোবেসে যাবেন, সাথে তাদের চলবে দুষ্টুমি, সে কথা বলতে ভুলেন নি সারা। সব মিলিয়ে একাধিক সেলফি এবং ভিডিও পোস্ট করে ভাইকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সারা আলি খান।