লাদাখে নতুন করে সীমানা তৈরির দাবি চিনের, তৃতীয় বৈঠকে কি কি হল জেনে নিন

তৃতীয়বারও অসফল, কোনোলাভের লাভ কিছুই হল না। আগের দুটি বৈঠকেও যা হয়েছিল, এবার সেটার বিপরীত হবে বলেই বোঝা গিয়েছিল, কিন্তু এবারেরটাও সফল। টানা ১২ ঘন্টার ক্রম কমান্ডার বৈঠকেও লাদাখ সমস্যার কোনো নিষ্পত্তি ঘটলো না। আসলে ঝামেলাটা হল, সেনা প্রত্যাহার না করা নিয়ে, কিন্তু এবার সবাই আশা করেছিল সবাই, যে কিছু একটা হবে দুই দেশের মধ্যে, কোনও না কোনও শান্তির বার্তা পাওয়া যাবে, কিন্তু সেই আশা জলে। এমনটাই জানা গেছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের দ্বারা।

ভারতের তরফ থেকে সেনাবাহিনীর ১৪ নম্বরের কোরের কমান্ডারের লেফটেন্যান্ট জেনারেল হরিন্দর সিং বৈঠকে উপস্থিত থাকেন। এদিকে চিনের তরফ থেকে উপস্থিত থাকেন দক্ষিণ জিনজিয়াং মিলিটারি রিজিয়নের কম্যান্ডার জেনারেল লিউ লিন। তাদের মধ্যে টানা ১২ ঘন্টার বৈঠক হয়, সবাই আশা করেছিল কোনো না কোনো সমাধান সূত্র বের হবে এখান থেকে কিন্তু না, সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, চিনের তরফ থেকে আবার দুই দেশের সীমানা নির্মাণের আর্জি জানানো হয়।

কিন্তু সেটা ভারতের তরফ থেকে কোনোভাবেই মেনে নেওয়া হয় নি। আসলে চিনাদের লক্ষ ভারতের অংশকে নিজেদের সীমানার মধ্যে এখন ঢুকিয়ে নিতে চাইছে, কিন্তু যেটা কখনই হতে দেবে না ভারত। তৃতীয় বৈঠকেও আসে নি কোনো সমাধান সূত্র। দুই দেশের দুই রকম দাবি, যা একে ওপরে মেনে নিতে নারাজ। চিন চাইছে তারা ভারতের জমিকে নিজের করে নিতে, যেটা ভারত কখনই হতে দেবে না, এদিকে আবার ভারত চাইছে চিনা সেনা প্রত্যাহার করুক, পিছিয়ে নেক, যেটা আবার চিনারা করবে না।

আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই চিনকে স্থিতাবস্থা ফিরিয়ে দিতে হবে বলে ভারত জানিয়েছে। এদিকে আবার চিন চাইছে প্যাংগং থেকে ভারতীয় সেনা যাতে দূরে সড়ে যায়, যেটা মানবে না ভারতীয় সেনা। তবে এই বৈঠক যে আবার হওয়ার সম্ভাবনা আছে, সেটা জানা গেছে সেনা সূত্রে।