ঘন কুয়াশায় মুড়েছে বাংলা, তবে কি পথ ভুল করে ফিরে এলো শীত, জানুন কি বললো হাওয়া অফিস

অবশেষে বঙ্গবাসীর দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটলো। পৌষের শেষাশেষি রাজ্য থেকে শীত উধাও হয়ে যাওয়াতে শীত প্রেমী বাঙালির মন বেশ খারাপ হয়ে গিয়েছিল। সকালে এবং রাতের দিকে শীতের আমেজ টের পেলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে গরমের দাপট বৃদ্ধি পাওয়াতে শীতের মাঝামাঝি সময়েও চরম অস্বস্তির মধ্যে দিন কাটাচ্ছিলেন রাজ্যের বাসিন্দারা। তবে এবার তাদের অপেক্ষার পালা শেষ। বাংলায় আবারও প্রবেশ করলো শীত।

গত মঙ্গলবার থেকেই রাজ্যে তাপমাত্রার পারদ নিচের দিকে নামতে শুরু করেছে। আগামী বৃহস্পতি এবং শুক্রবার, শীতের আমেজেই মজে থাকবেন বঙ্গবাসী। আলিপুরের তরফ থেকে অবশ্য আগেই নিশ্চিত করা হয়েছিল, পৌষ সংক্রান্তির আগেই বাংলায় শীত ফিরে আসবে। সেই ভবিষ্যৎ বাণী সত্যি প্রমাণ করেই বাংলায় আবারও শীত প্রবেশ করলো। একইসঙ্গে গরমের অস্বস্তিকর অনুভূতি থেকে মুক্তি পেলেন বঙ্গবাসী।

মৌসম বিভাগ সূত্রে খবর, বুধবার সকাল থেকেই রাজ্যজুড়ে কুয়াশার দাপট ছিল। এদিন শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬. ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে, স্বাভাবিকের থেকে যা অন্তত দুই ডিগ্রি বেশি। বিগত কয়েক দিনের তুলনায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পারদ এক ধাক্কায় পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াস নিচে নেমে গিয়েছে। হাওয়া অফিস অবশ্য বলছে, আগামী দুই দিনের তাপমাত্রার পারদ আরও নিচের দিকে নামার সম্ভাবনা আছে।

অর্থাৎ বিগত দিনের শীতের খামতি এবার বেশ পুষিয়ে নেওয়া যাবে। কলকাতার পাশাপাশি রাজ্যের বিভিন্ন জেলার তাপমাত্রাও কমের দিকেই থাকবে। তবে আগামী দুই দিনের পর থেকে অবশ্য তাপমাত্রার পারদ উপরের দিকে উঠবে বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। এদিকে আগামী দুইদিন উত্তর ভারতের পাঞ্জাব, হরিয়ানা, চণ্ডিগড়, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, রাজস্থানের মতো রাজ্যগুলিতে শৈত্যপ্রবাহের সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে।