পাগড়ি খোলা কাণ্ড নিয়ে প্রবল বিক্ষোভ, অবশেষে মুক্তি পাচ্ছেন বলবিন্দর সিং!

বিজেপির নবান্ন অভিযান কর্মসূচিতে বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্র সঙ্গে রাখার অভিযোগে ধৃত বলবিন্দর সিংকে শীঘ্রই মুক্তি দেওয়া হবে। সম্প্রতি, বলবিন্দরের স্ত্রী করমজিৎ কাউরের কাছ থেকে এমনটাই জানা গেল। রাজ্য সরকার অথবা রাজ্য পুলিশের তরফ থেকে অবশ্য এই সংবাদের সত্যতা এখনো পর্যন্ত নিশ্চিত করা হয়নি। তবে করমজিৎ আশাবাদী, শীঘ্রই পুলিশি হেফাজত থেকে মুক্তি পাবেন বলবিন্দর।

উল্লেখ্য, বলবিন্দরের গ্রেফতারির ঘটনার পর চলতি সপ্তাহেই দিল্লি থেকে হাওড়াতে এসে উপস্থিত হন করমজিৎ এবং তার ছেলে। বাংলায় এসে তিনি রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে দেখাও করেছেন। করমজিৎ জানালেন, হাওড়ায় আসার পর শুক্রবার তার সঙ্গে কলকাতার শিখ সম্প্রদায়ের দুজন ব্যক্তি দেখা করেছিলেন। তারাই তাকে নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, বলবিন্দর মুক্তি পেতে চলেছেন।

শুধু তাই নয়, বলবিন্দরের উপর যে মামলা দায়ের করা হয়েছে, সেই মামলাও খারিজ করে নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ওই দুই ব্যক্তি। করমজিৎ এর মতে, শিখ সংগঠনের দুই নেতা এবং রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্রর উদ্যোগেই মুক্তি পেতে চলেছেন বলবিন্দর। তিনি আরো জানিয়েছেন, বলবিন্দরের গ্রেফতারির বিরুদ্ধে সারাবিশ্ব এবং সারাদেশের শিখ সম্প্রদায়ের একযোগে তাদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন।

উল্লেখ্য, বিজেপি নবান্ন অভিযান কর্মসূচির দিন বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অভিযোগে বিজেপি নেতার দেহরক্ষী বলবিন্দরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তবে, গ্রেফতারির পূর্বে পুলিশের বিরুদ্ধে বলবিন্দরের পাগড়ী খুলে নেওয়া এবং তার চুল ধরে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠে। শিখ সম্প্রদায়ের এক ব্যক্তির এহেন হেনস্থার বিরুদ্ধে গর্জে ওঠে সারাদেশ। প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়েই বলবিন্দরকে মুক্তি দিতে বাধ্য হচ্ছে রাজ্য সরকার, এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।