NRC নিয়ে মুখ খুললেন পিকে, সোনিয়া গান্ধীকে কড়া ভাষায় তোপ প্রশান্তর

সিএএ, এনআরসি এবং এনপিআর বিতর্ককে উস্কে দিয়ে সোনিয়া গান্ধীর নীরবতা নিয়ে পুনরায় সওয়াল করলেন তৃনমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক উপদেষ্টা প্রশান্ত কিশোর। সোমবার সংবাদসংস্থা এএনআই কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন,” কেন কংগ্রেস সভানেত্রী প্রকাশ্যে ঘোষণা করছেন না যে কংগ্রেসশাসিত রাজ্যগুলিতে এনআরসি হতে দেবেন না তাঁরা।’‌

এনপিআর যে এনআরসি–র প্রথম ধাপ সেকথা আরেকবার মনে করিয়ে দিয়ে প্রশান্ত বলেছেন, ‘‌২০০৩ এর নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের সঙ্গে এর সম্পর্ক আছে। সেখানেই বিশদে লেখা আছে যে, এনপিআর–এর পরে সরকার চাইলে এনআরসি করতেই পারে।’‌

এ প্রসঙ্গে উল্লেখ্য যে এনআরসির বিরুদ্ধে প্রথম গর্জে উঠেছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
এরপর একই পথে হেঁটেছিল জেডিইউ। জেডিইউ এর সহ সভাপতি বলেন, “আমরা মনে করি সিএএ আইন হিসেবে বৈষম্যমূলক এবং এনআরসি–র সঙ্গে যুক্ত হলে সেটার ফল হবে ভয়ঙ্কর।

কারণ এনআরসি–র সঙ্গে যুক্ত হলে এটা শুধু ধর্মের ভিত্তিতে নয়, শ্রেণির ভিত্তিতেও বৈষম্য করবে। যে সব গরিব মানুষদের কাছে তাঁদের বা তাঁদের পূর্বপুরুষদের জন্মের নথি নেই তাঁরা নিজেদের নাগরিকত্ব প্রমাণ করতে পারবেন না। যা তাঁদের জীবন অর্থনৈতিক এবং সামাজিকভাবে দুর্বিসহ করে তুলবে। সেজন্যই এনআরসি–র বিরুদ্ধেই সর্বদা থেকেছে জেডিইউ ।’‌’

প্রশান্ত কিশোর আরো বলেন ” এন আর সি ইস্যুতে সোনিয়া গান্ধীর নীরবতা সত্যিই আমার ভাবনার বাইরে। কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট যদি এই ব্যাপারে খোলাখুলি কথা বলেন তাহলে তা জনগণের কাছে অনেকটাই স্বচ্ছতা আনবে।” তিনি আরো বলেন “সোনিয়া গান্ধীর কংগ্রেস শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের বলা উচিত যে তারা এন আর সি হতে দেবেন না।”

সমস্তরকম এক্সক্লুসিভ খবর পেতে লাইক করুন