কবে চলবে লোকাল ট্রেন? স্পেশাল ট্রেন অবরোধ করে প্রশ্ন নিত্যযাত্রীদের, ব্যাপক শোরগোল হুগলিতে

আজ বিকেল পাঁচটার সময় রাজ্যে পুনরায় লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করার বিষয়ে বৈঠকের আয়োজন করেছে রাজ্য সরকার। এদিনের বৈঠকে প্রশাসনের শীর্ষ আধিকারিকদের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন রেল দপ্তরের আধিকারিকেরা। তবে তার আগেই রাজ্যে অবিলম্বে লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করার দাবিতে সরব হয়ে রাজ্যের একাধিক স্টেশনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন নিত্যযাত্রীরা।

সূত্রের খবর, এদিন সকাল থেকেই হুগলির বিভিন্ন স্টেশনে উত্তেজনা ছড়িয়েছে। রিষড়া, বৈদ্যবাটিতে রীতিমতো ধুন্ধুমার কান্ড বেঁধে যায়। সোমবার সকাল আটটা থেকেই হুগলির বৈদ্যবাটি স্টেশনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন উত্তেজিত জনতা। বিক্ষোভের জেরে দীর্ঘক্ষন স্পেশাল ট্রেন আটকে থাকে স্টেশনে। পরিস্থিতি সামাল দিতে বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে হুগলি স্টেশনে। উত্তেজিত জনতা স্টেশনের পাশাপাশি পথ অবরোধ করেও নিজেদের বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন বলে জানা গেছে।

রিষড়া, শেওড়াফুলি স্টেশন গুলিতেও একই অবস্থা। বেশ কয়েকটি স্টেশনে স্পেশাল ট্রেন আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন নিত্যযাত্রীরা। জি টি রোড অবরোধ করা হয়েছে। উল্লেখ্য, এর আগেও পান্ডুয়া এবং চুঁচুড়াতে একইভাবে লোকাল ট্রেন চালানোর দাবি তুলে বিক্ষোভ দেখান উত্তেজিত জনতা। এদিকে যাত্রীদের বিক্ষোভের ফলাফল স্বরূপ রাজ্যে সকাল-বিকেল ট্রেন চালনা করার সিদ্ধান্ত নিয়ে শনিবার রেল দপ্তরের কাছে একটি বিশেষ চিঠি পাঠিয়েছে রাজ্য।

কোন কোন স্টেশনে, কটি ট্রেন চলবে, কিভাবে ট্রেন চালনা করা হবে, ট্রেনে ওঠার ক্ষেত্রে কি কি পদ্ধতি রাখতে হবে, সে সম্পর্কিত বিভিন্ন খুঁটিনাটি বিষয় রেল এবং প্রশাসনিক অধিকর্তারা এদিনের বৈঠকে নিজেদের প্রস্তাব রাখবেন। তার উপর ভিত্তি করেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য সরকার। দীর্ঘ প্রায় আট মাস পর অবশেষে নিত্যযাত্রীদের ভোগান্তি কিছুটা দূর হবে বলেই আশা করা হচ্ছে।