হাথরাসে হয়নি গণধর্ষণ, চূড়ান্ত রিপোর্ট দিলো ফরেন্সিক দল, তদন্ত নিয়ে উঠছে প্রশ্ন

এবার হাতরসের গণধর্ষণ কান্ডের এক নতুন মোড় , সম্প্রতি এই ঘটনার ফরেনসিক রিপোর্টে জানিয়ে দেওয়া হল, তরুণিকে ধর্ষণ বা গণধর্ষন করা হয় নি। যেটা উত্তরপ্রদেশের পুলিশের তরফ থেকেও এই কতাহ শোনা গিয়েছিল। এখন স্বাভাবিকভাবেই এই ফরেনসিক রিপোর্টের পরে উঠে আসছে অনেক প্রশ্ন। তবে বিশেষজ্ঞদের তরফ থেকে প্রশ্ন একটাই ঘটনার কতদিন পরে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে? এই ফরেনসিক রিপোর্ট করা হয়েছে আগ্রার এক সায়েন্স ল্যাবরেটরিতে। যেখানে বলা হয়েছে, তরুণির দেহে পাওয়া যায় নি কোনও ধরনের বীর্য, এমনকি নেই কোনো যৌন সংসর্গের চিহ্ন।

তবে এই ফরেনসিক রিপোর্ট প্রকাশ্যে আসতেই প্রশ্ন করতে শুরু করেছে মানুষ, বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন আসলে ১৪ সেপ্টেম্বর এই ঘটনা ঘটে, তার ১১ দিন পরে সেই নমুনা পরীক্ষা করা হয়। আর এতোদিন পরে নমুনা পরীক্ষা করলে স্বাভাবিকভাবেই বীর্য পাওয়া যাবেই না। আর এটার কারণ যে প্রশাসনিক গাফিলতি সেটা স্পষ্ট জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

১৪ সেপ্টম্বর ঘটনা ঘটেছে, আর নমুনা সংগ্রহ করা হয় ২২ সেপ্টেম্বর, যা কিনা পরীক্ষা করা হয় ২৫ সেপ্টেম্বর। এই নিয়ে শেষে ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ঘটনার সাথে সাথে নমুনা সংগ্রহ করা হলে তবেই সমস্তটা পাওয়া যাবে, সেখানে অন্যান্য নমুনার সাথে বীর্য সমস্তটাই পাওয়া যবে। দেরি করলে সেগুলো পাওয়া যাবে না। ধর্ষণের অভিযোগ আসলেই সাথে সাথেই মেডিক্যাল পরীক্ষা করা উচিৎ, আর এটা না হওয়ার কারণ প্রশাসনের গাফিলতি।