হজ হা’উ’জ’গু’লো’কে কো’ভি’ড হা’স’পা’তা’ল বা’না’নো’র “আর্জি” কে’ন্দ্রী’য় স’র’কা’রে’র

করোনার কারণে বর্তমানে দেশে যে ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে তা সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে কেন্দ্র। দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে বেডের আকাল দেখা দিয়েছে। এদিকে সংক্রমণের হার দ্রুত বাড়ছে। সবদিক বিবেচনা করে এবার কেন্দ্রীয় সরকার বিভিন্ন রাজ্যের হজ হাউসগুলিকে অস্থায়ী করোনা হাসপাতাল হিসেবে ব্যবহার করার নির্দেশ দিয়েছে।

সোমবার কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রকের তরফ থেকে এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশিকা প্রকাশ করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় হজ কমিটির তরফ থেকেও একটি বিবৃতি মারফত টেন্ডার এই সিদ্ধান্তের প্রতি সমর্থন জানানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নকভি কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য স্তরের হজ কমিটিগুলিকে করোনার দরুন এই আপৎকালীন পরিস্থিতিতে হজ হাউসগুলিতে অস্থায়ী ‘কোভিড কেয়ার সেন্টার’ গড়া যায় কি না, তা পর্যালোচনা করতে বলেছেন।

মন্ত্রকের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকের পরে বিভিন্ন রাজ্যের হজ কমিটির কার্যনির্বাহী আধিকারিকদের এই মর্মে একটি নির্দেশিকাও পাঠিয়েছেন কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নকভি। প্রসঙ্গত গত সোমবার দেশে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লক্ষ ৫২ হাজার ৯৯১ জন। দিন প্রতিদিন সংখ্যাটা বাড়ছে। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৮১২ জনের।

আক্রান্তের সংখ্যা এত দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে যে করোনা আক্রান্ত সকল রোগীকে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। হাসপাতালগুলিতে বেডের সমস্যা দূর করতে এবার তাই নতুন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করল কেন্দ্রীয় সরকার। গত বছরের মতো এবারও বিভিন্ন রাজ্যের হজ হাউসগুলিকে অস্থায়ী কোভিড হাসপাতাল হিসেবে ব্যবহার করা হবে।