কর্তব্যে অবিচল নার্স, লকডাউনে যাননি বাড়ি, মেয়ের ফোনে কেঁদে ভাসান মা

doctor in green uniform doctor in green uniform

করোনার জেরে বিশ্বের টালমাটাল অবস্থা। বিশ্ববাসীর রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছে অজানা এই ভাইরাস। এই ভাইরাসের প্রতিষেধক আবিষ্কার না হওয়ায় লকডাউন করেই এই ভাইরাসটিকে দমন করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে । লকডাউনের জন্য মানুষ এখন ঘরবন্দি। সাধারণ মানুষ এই সময় ঘর বন্দী হয়ে বসে থাকলেও ডাক্তার নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের কিন্তু কোনো ছুটি নেই কর্তব্য পরায়নে তাঁরা অবিচল। এমনই এক নার্স করোনা লড়াইয়ে বীরভূমের সিউড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের করোনা আইসোলেশান ওয়ার্ডে কর্তব্য পালন করছেন । তাঁর নাম রিঙ্কু পাত্র।

রিঙ্কুর বাড়ি পূর্ব মেদিনীপুরের ময়নাতে। নার্স হিসাবে তাঁর চাকরি পাবার পর প্রথম পোস্টিং হয় সিউড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। এখন তিনি করোনা রোগীদের সেবা করার কর্তব্য পালনে রত আছেন। লকডাউনের আগেই চাকরিতে যোগ দিয়েছিলেন রিঙ্কু। চাকরিতে যোগ দেওয়ার পর কয়েক দিনের ছুটিতে একবার বাড়িও গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু এখন রোগীর সেবার দায়িত্বের কথা মাথায় রেখে এক প্রকার ছেড়ে দিয়েছেন বাড়ি ফেরার সব আশা।

তাঁকে নিয়ে তাঁর পরিবারের সদস্য চারজন। মা – বাবা – দাদা এবং রিঙ্কু। তাঁদের সঙ্গে কিছুদিন সময় কাটানোর পর কাজে ফেরেন তিনি ।তার পর থেকে একটানা চিকিৎসা পরিসেবা দিয়ে আসছে রিঙ্কু। বাড়িকে কার্যত ভুলেই গেছেন তিনি।রিঙ্কু কাজের চাপে বাড়ি যাওয়ার কথা ভুলে গেলেও ভুলতে কি পাচ্ছে তার মা আদর-স্নেহের সব থেকে শ্রেষ্ঠ হলেন মা তার মায়ের মনটা পড়ে আছে রিঙ্কুর কাছেই। মা তাঁর মেয়ে রিঙ্কুর জন্য দুশ্চিন্তায় দিন কাটাচ্ছেন।

তিনি ফোন করে কেঁদে মেয়েকে বলেন সাবধানে থাকিস মা। শরীরের যত্ন নিস। শত কাজের ব্যস্ততার মধ্যেও মাঝে মধ্যে পরিবারের জন্য মন খারাপ করে ঠিকই তবে করোনা সংক্রমিত মানুষদের সুস্থ করাই এখন তাঁর প্রধান লক্ষ্য, কারণ এই কাজের জন্য তিনি যে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ এমনই মত প্রকাশ করেন রিঙ্কু।

লকডাউন সমাপ্ত হলে বাড়ি যাওয়ার ইচ্ছা থাকলেও তাকে চিন্তা করতে হচ্ছে এক জেলা থেকে অন্য জেলায় গেলে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন এ থাকার কথা। 14 দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার মত ছুটি হয়তো সে পাবে না ।তার উপর ভাবতে হচ্ছে পাড়ার স্থানীয় লোকরা কী ভাবে নেবে সে কথাও। তাই আপাতত বাড়ি যাওয়ার কথা ভুলে রোগীর সেবাতেই মন দিয়েছেন।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন