কিংবদন্তী অভিনেত্রী রেখার জন্মদিন, তার জীবন কাহিনী যেন বাঁধভাঙা কান্নায় পরিপূর্ণ

বলিউড অভিনেত্রী রেখা কে একনামে সকলে চেনেন। তার অভিনয় দক্ষতা অথবা তার সৌন্দর্যের মাতোয়ারা হয়ে যান সকলে। এত বয়সে তার রূপের পাশে দাঁড়াতে পারেন না অনেক অভিনেত্রী। শনিবার এই কিংবদন্তী অভিনেত্রী শুভ জন্মদিন। চলতি বছরই ৬৬ বছরে পা দিলেন তিনি। তবে শনিবার যে তিনি সাফল্যের চরম শিখরে পৌঁছেছেন, এই পথ নিতান্তই সহজ ছিল না।

তিনি প্রথম ১৯৬৬ সালে তেলেগু ছবি সঙ্গলা রত্নমে শিশু অভিনেত্রী হিসেবে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে পদার্পণ করেছিলেন। নায়িকা হিসেবে তিনি প্রথম সিনেমা করেছিলেন শ্রাবণ ভাদ তে।ক্যারিয়ারের প্রথম দিকে তিনি তার সৌন্দর্যের দ্বারা সকলের মন জয় করে নিয়েছিলেন।তখনকার সময়ে একমাত্র আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু ছিলেন রেখা।

একটি সাক্ষাৎকারে একবার জনপ্রিয় অভিনেত্রী রেখা জানিয়েছেন, তার গায়ের রং এবং দক্ষিণ ভারতের বিশেষত্ব থাকার কারণে তাকে খারাপ শিশু বলে মনে করা হতো। তবে তিনি আনন্দিত যে তিনি এই বিষয়ে মানুষের ধারণা বদলাতে পেরেছেন।পরবর্তী ছবি কাজ করার আগে তিনি বাছাই করে দিতেন কারণ কোন ছবিতে তিনি অভিনয় করবেন তার ওপর নির্ভর করবে তার চরিত্র বিশ্লেষণ।

১৯৭৬ সালে দো আনজানে সিনেমারে তার প্রথম পারফরমেন্স অরিয়েন্টেড ছবি ছিল। ভক্তরা এই নতুন অবতারে তাকে স্বাগত জানাতে শুরু করে। রেখা ব্যক্তিগত জীবনে তেলেগু অভিনেত্রী পুষ্পা এবং তামিল অভিনেতা গণেশনে র কন্যা ছিলেন। রেখার বাবা তার মেয়েকে বিয়ে করেননি। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি লাভ চাইল্ড ছিলেন। তার বাবা কখনোই তাকে নিজের সন্তান হিসেবে মেনে নিতে পারেননি। তবে রেখা কোন দিন অভিনেত্রী হবার স্বপ্ন দেখেননি। কিন্তু পারিবারিক অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ থাকার কারণে স্কুল ছেড়ে ছায়াছবিতে কাজ করতে বাধ্য হন তিনি।

১৯৭৮ সালে তিনি একটি অত্যাচারিতা নারীর ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন ঘর সিনেমাটি তে। এ সিনেমায় একজন ধর্ষিতা নারীর জীবন কাহিনী তুলে ধরার চেষ্টা করেছিলেন তিনি। এ সিনেমাটি তার ক্যারিয়ারের অন্যতম সুপারহিট সিনেমা ছিল। বিনোদ মেহরা সঙ্গে টক্কর দিয়ে অভিনয় করেছিলেন তিনি। তার স্বামীর ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন বিনোদ মেহেরা। স্বামীকে ভালোবাসা এবং সেবা দিয়ে জীবনের গতিপথে ফিরিয়ে আনার কাহিনী ছিল এটি। এই সিনেমার হাত ধরেই সর্বশেষ্ঠ অভিনয়ের জন্য প্রথম ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পেয়েছিলেন রেখা।

রেখা এবং অমিতাভ বচ্চনের বেশকিছু সিনেমা তখনকার দিনে সুপার হিট সিনেমার মধ্যে গণ্য করা হতো। অনস্ক্রিন কেমিস্ট্রির পাশাপাশি ব্যক্তিগত জীবনেও তাদের প্রেম জমে উঠেছিল। তবে শুধুমাত্র অমিতাভ বচ্চন নয়,বহু অভিনেতাদের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন রেখা।মুকাদ্দার কা সিকান্দার ছবিতে অভিনয় করার পর থেকে তাকে আর জীবনে কখনো ঘুরে তাকাতে হয়নি।