52 দিন ধরে আইসোলেশনে, পরপর 3 বার করোনা পজিটিভ!, মানসিক ভারসাম্য হারাচ্ছেন 26 বছর বয়সী যুবক

চিনদেশের ইউহান শহর থেকে উৎপত্তি লাভ করা করোনাভাইরাস বিশ্বের প্রতিটি দেশেই ছড়িয়ে পড়েছে। একের পর এক আক্রান্ত সংখ্যা বেড়ে চলেছে সাথে অব্যাহত আছে মৃত্যু-মিছিল । আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা নিরিখে বিশ্বের মধ্যে শীর্ষস্থানে আছে আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র। সেখানেই ৭২ হাজার মানুষ এই রোগে সংক্রমিত হয়ে মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া যায়।যুক্তরাষ্ট্রে গত দুই মাসে তিনবার করোনাভাইরাস টেস্টে পজিটিভ হয়েছেন টেক্সাসের ক্রিস্টিয়ান বার্মিয়া ২৬ বছরের এক মার্কিন যুবক। তার এখন পাগলের মত অবস্থা। আর ধৈর্য ধরে রাখতে পারছেন না ওই যুবক। প্রাণঘাতী ভাইরাসের ধরণ দেখে তিনি বুঝতে পারছেন না, আদৌ সুস্থ হবেন কিনা।

১৯ মার্চ প্রথমবার পজিটিভ হওয়ার পর গত ১৩ এপ্রিল ও চলতি মে মাসের ১ তারিখে তাঁর করোনা টেস্টে পজিটিভ হয়েছেন। ক্রিশ্চিয়ান বার্মিয়া নামের ওই যুবকের এখনও পর্যন্ত ৫২ দিন আইসোলেশনে রয়েছেন। তাঁর শরীরে এখনো করোনার উপসর্গ আছে। তবে শুরুতে তিনি যেমনটা অসুস্থ বোধ করতেন এখন তার থেকে অবস্থা ভালো আছে।বার্মিয়া জানিয়েছেন, “এই ভাইরাস মানসিক দিক থেকেও মানুষকে শেষ করে দেয়। তিনি বললেন, সব সময় মন হয় যেন আমার শরীরে ভাইরাস রয়েছে এখনও। একটা অজানা ভয় চেপে ধরে। শরীর তো ভেঙে যাবেই, সেইসঙ্গে মানসিক দিক থেকেও দুর্বল করে দেবে এই ভাইরাস। নিজেকে পাগলের মতো মনে হবে।”

এর পাশাপাশি তিনি আরো বলেন আমি শতভাগ সুস্থ নই। আগের মতো ঘ্রাণ পাই না। শ্বাস নিতে কষ্ট হয়। শরীর মারাত্মক দুর্বল থাকে সব সময়। মাথা ঘোরে। জ্বর, গলা ব্যথা লেগেই রয়েছে। এতদিন ধরে ভুগছি। এবার মনে হচ্ছে যেন আর বাঁচব না।এই সপ্তাহে আরও একবার তাঁর করোনা টেস্ট হবে । সামনের কয়েক মাস তাঁর আবারও বেশ কয়েকবার টেস্ট হবে বলে জানিয়েছেন টেক্সাসের এই যুবক। আপাতত তাঁকে আইসোলেশনে থাকতে হবে। তবে ঠিক কতদিন তাঁকে আইসোলেশনে থাকতে হবে সেই সম্পর্কে ডাক্তাররাও নিশ্চিত ভাবে কিছু বলতে পারছেন না।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন