জানুন ডিপ্রেশনের প্রধান লক্ষণ! এবং কাটিয়ে উঠতে উদ্যত হন

371
জানুন ডিপ্রেশনের প্রধান লক্ষণ! এবং কাটিয়ে উঠতে উদ্যত হন

ঘনঘন মনখারাপ, কাজের চাপে মাথা কাজ না করা, স্ট্রেস নেওয়া অনেক বেশী এখন ঘর ঘরের কাহিনী। সহজ সরল জীবনে ফিরতে পরিবারের সাথে ঘুরতে গিয়ে নতুন স্মৃতি তৈরী করে অনেকেই রোজকার জীবন যাপন করছেন। কিন্তু যারা ডিপ্রেশনে ভোগেন তাদের ক্ষেত্রে হিসেবটা অন্যরকম। কখনো কারণে আবার কখনো বিনা কারণে মনখারাপের কালো জালে জড়িয়ে পড়ে তাঁরা। কি চলছে তাদের ভেতর? ঠিক কতটা আগুন জ্বলছে তাঁদের ভেতরে খুলে বলতে পারে না কাছের মানুষদেরও।

এই রকম আপডেট পেতে লাইক করুন

নিজেদের দুঃখে মগ্ন হয়ে ডুবে যায় তাঁরা, আর তার প্রবলতা এতটাই বেশী যে কিছুক্ষেত্রে আত্মহত্যার পথও বেছে নেয় তাঁরা। এইধরনের রোগীর সংখ্যা প্রতিনিয়ত বাড়ছে, আর আজ প্রায় ঘরে ঘরেই রয়েছে ডিপ্রেশনের রোগী। জেনে নেওয়া যাক ডিপ্রেশনের প্রধান কয়েকটি লক্ষণ-

1) ক্লান্ত ভাব কিন্তু ঘুম না আসা- ডিপ্রেশন প্রথমেই থাবা বসায় এনার্জির ঘরে। কখনো কখনো সারাদিন হাড়ভাঙা খাটুনির পরেও ঘুম আসবে না, আবার কখনো কখনো বিনা খাটুনিতেও এমন ঘুম আসবে যার জন্য আপনার রোজকার রুটিন ব্যাহত হবে। আপনার ভালোলাগা গুলো আর ভালো লাগবে না, ক্লান্তি বাড়বে।

2) অনিয়ন্ত্রিত আবেগ- ডিপ্রেশনের আরেকটি প্রধান লক্ষণ হল সাংঘাতিক মুড সুইং। নিজের রাগ, দুঃখ, কান্না, বিরক্তি কিছুর ওপরেই নিয়ন্ত্রণ থাকবে না।

3) নিরাশা- যে কোনো পরিস্থিতিতে নেগেটিভ চিন্তা আগে আসবে মাথায়। কোনো কাজ করারই ইচ্ছে থাকবে না। নিরাশা ঘিরে থাকবে সারাক্ষণ।

4)পুরোনো অ্যাক্টিভিটি গুলো আর মন কাড়বে না- আপনার পছন্দের হবি গুলোই আপনার কাছে হয়ে উঠবে অস্বস্তিকর। বন্ধুদের সাথে সিনেমা দেখতে যাওয়া, নাটকে যাওয়া আর ভালো লাগবে না। সেক্ষেত্রেও ক্লান্তি আসবে।

4) শরীরে ব্যথা বা অস্বস্তি বাড়বে-  শরীরে অদ্ভুত ব্যথা-বেদনা অনুভব হবে। চোট বা আঘাত না পেয়েও অদ্ভুত অস্বস্তি হবে।

5) মনোসংযোগ বিঘ্নিত- মন দিয়ে কোনো কাজই আর আগের মতো করতে পারবেন না। ছোটো ছোটো ঘটনা গুলো ভুলে যাবেন অনায়াসে। কাজেও বাড়বে ভুল ভ্রান্তির পরিমাণ ।

6) ঝুঁকি নেবেন যখন তখন- নিজের ক্ষতির কথা আর মাথায় থাকবে না। নিজের কথা চিন্তা না করেই জোরে গাড়ি চালানো, নেশা করা, জুয়া খেলা এইসবে ডুবে যেতে থাকবেন দিন দিন।

এই রকম আপডেট পেতে লাইক করুন