এদেশের এমন একটি জায়গা যেখানে ‌ক’রো’না’র কোনো আ’ত’ঙ্ক নেই, নাম শোনেননি ভ্যা’ক’সি’ন ও মা’স্কের

সারা ভারত বর্ষ এখন এক কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছে। মাস্ক ছাড়া বাইরে কোথাও বেরোবার উপায় নেই। নতুবা মহামারীর সংক্রমনের মুখে পড়তে হবে। তবেই ভারত বর্ষেই রয়েছে এমন একটি জায়গা যেখানে ‌করোনার কোনো আতঙ্ক নেই। শুনতে অবাক লাগলেও ভারতবর্ষের বুকে রয়েছে এমন একটি জায়গা। তামিলনাড়ুর আন্নামালাই টাইগার রিজার্ভ ফরেস্টের অভ্যন্তরের বাসিন্দারা করোনা ভাইরাসের ভয় কাটিয়েছেন।

আন্নামালাই টাইগার রিজার্ভ ফরেস্টের কাট্টুপাত্তি এবং কুজুপাত্তির বাসিন্দারা জানেনই না করোনা কী। মহামারীর সংক্রমণের হাত থেকে বেঁচে গিয়েছেন তারা। পুলায়া জনজাতির ১৫০ ঘর বাসিন্দা রয়েছেন সেখানে। দুর্গম পাহাড়ি পথেই তাদের বসবাস গড়ে উঠেছে। চিকিৎসার প্রয়োজন এবার রোজগার দরকারি জিনিসপত্র আনা নেওয়া ছাড়া শহরের সঙ্গে তেমন সংস্পর্শ নেই তাদের।

সমতলে কি এক ভয়ানক ভাইরাস ঘুরে বেড়াচ্ছে! একথা এখানকার বাসিন্দারা জানেন। নিচে সবাই তাই মাস্ক পড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তাই এই জনজাতির মানুষেরা এখন আর খুব বেশি প্রয়োজন ছাড়া শহরমুখো হচ্ছেন না। তবে স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে চিকিৎসক-নার্সরা না কিন্তু তাদের শারীরিক চেকআপ করতে নিয়মিত আসা-যাওয়া করছেন।

গর্ভবতী মহিলাদের দেখভাল করছেন তারা। সমতলে ভ্যাক্সিনেশন শুরু হয়েছে। একথাও জানেন এখানকার বাসিন্দারা। ভ্যাকসিন নিয়ে তাদের মনে প্রবল আগ্রহ এবং গুজবও কিছু রয়েছে। দুর্গম পাহাড়ের বুকে এই জনজাতি জনসমাজের থেকে বিচ্ছিন্ন হয় বেশ সুখেই আছেন। গ্রামের ছেলেদের মধ্যে কেউ কেউ বাইরে চাকরি করছেন। কেউ চাকরি জোটাতে না পেরে গ্রামেই চাষবাস করছেন। জীবনযাত্রা নির্বাহের ক্ষেত্রে এখানকার বাসিন্দাদের যেন কোনো অংশে কিছু খামতি নেই।