পিঠের ব্যথাকে উ’পে’ক্ষা করছেন ইচ্ছে করেই? কোনো দুরারোগ্য রো’গ হয়নি তো?

পিঠের ব্যথা খুবই সাধারণ সমস্যা। প্রায় প্রত্যেকেই মাঝে মাঝে এই সমস্যায় ভোগেন। তবে এই পিঠের ব্যথাকে আপনার সামান্য মনে হলে কি হবে, এখান থেকেও দানা বাঁধতে পারে অনেক জটিল রোগ। তাই কোনো সময়েই পিঠের ব্যথাকে উপেক্ষা করা উচিত নয় বলে পরামর্শ দিয়েছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। নিজেদেরকে সচেতন হওয়ার উপদেশ দিয়েছেন তারা।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, সাধারণত তরুণ বয়স থেকেই শুরু হয় পিঠের ব্যথার সমস্যা। কম বয়স বলে এই সমস্যাকে সহজেই উপেক্ষা করে তরুণ তরুণীরা। যদি এটির সময়মতো সঠিক চিকিৎসা না হয় তাহলে আপনি পড়তে পারেন ব্যাপক ক্ষতির মুখোমুখি। আপনার বেখেয়ালে এটি মেরুদণ্ডের কোষগুলিকে ক্ষতি করতে পারে। শুধু তাই নয়, এর কারণে দৈনন্দিন কাজ করাতেও ভীষণ সমস্যা হতে পারে। আপনার পিঠের ব্যথার কারণে মোজা পরার মতো সামান্য কাজকেও আপনার অত্যধিক কঠিন বলে মনে হতে পারে। পরিস্থিতি গুরুতর হলে, এটি শরীরে নতুন হাড় তৈরি করে। যদিও কি কারণে পিঠে ব্যথা হচ্ছে তা জানতে জানতেই অনেক সময় ৮.৫ বছর পেড়িয়ে যায়।

পিঠের ব্যথা হলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মানুষ এটিকে বাতের সমস্যা বলে ধরে নেয়। কিন্তু স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে এটি এর চেয়ে অনেক বেশি মারাত্মক হতে পারে। পিঠের ব্যথার চিকিৎসার পরিবর্তে রোগীরা ব্যথা কমানোর উপায় খোঁজেন। আর এর ফলেই চাপা পড়ে যায় আসল রোগ। মেরুদণ্ডের জয়েন্টগুলোতে ব্যথার কারণে পিঠের নীচের অংশ এবং কোমরেও ব্যথা হয়। ডাক্তারদের মতে, এটি সায়াটিকাও হতে পারে এবং প্রায়ই মানুষ এই দুরারোগ্য রোগ বুঝতে পারে না।

এটি ছাড়াও, এটি Axial spondyloarthritis- এর লক্ষণও হতে পারে। Axial spondyloarthritis প্রাথমিকভাবে ধরা পড়ে না এবং তার জন্য এক্স-রে করতে হয়। যদিও Axial spondyloarthritis-এর প্রাথমিক লক্ষণগুলি এক্স-রেতেও দেখা যায় না যতক্ষণ না এটি একটি গুরুতর পর্যায়ে পৌঁছায়। এই কারণেই ডাক্তাররাও এই রোগ সম্পর্কে নিশ্চিত হতে , MRI বা রক্ত ​​পরীক্ষাও করতে দেন। এই অবস্থায় ব্যথা জয়েন্টগুলো থেকে শুরু হয়ে নিতম্ব পর্যন্ত পৌঁছায়। ক্রমাগত পিঠে ব্যথা কোষ এবং হাড়ের কেবল ক্ষতি করে না, বরং এটি মানসিক স্বাস্থ্যের উপরও প্রভাব ফেলে।