বৌভাতের অনুষ্ঠানে কম পড়েছে মাংস, বর ও কনেপক্ষের লোকজনদের মধ্যে মারপিট, প্রাণ গেলো ছেলের কাকার

সাধারনত আমরা টাকা পয়সা থেকে শুরু করে অন্যান্য জিনিস অথবা সম্পত্তির কারনে সংঘর্ষ হতে একে অপরকে দেখি কিন্তু এটা অভিনব যা হলো খাবারকে কেন্দ্র করে। বৌভাতের অনুষ্ঠান চলাকালীন খাবারের মধ্যে মাংস কম হওয়ার জন্য সংঘর্ষ বেধে গেল বর এবং বউয়ের পক্ষের মধ্যে।

ঘটনাটি ঘটেছে বাংলাদেশের বরিশালে। বিয়ে মানেই অনেক অনেকদিন সামলাতে হয় দুই বাড়ির পক্ষকেই। আত্মীয়-স্বজন থেকে শুরু করে পাড়া-প্রতিবেশীর সকলকেই আতিথেয়তা করতে যেন কোন রকম ত্রুটি না হয় সেই চেষ্টা করে উভয় পক্ষ। বিয়েবাড়ি মানেই পাঁচ রকম কথা ভুলত্রুটি সমস্ত কিছু মিলেই হয়।

কিন্তু এ কেমন বিয়ে বাড়ি যেখানে খাবার কম পড়ার জন্য বর এবং বউ দুই পক্ষের মধ্যে বেঁধে গেল সংঘর্ষ যার জন্য প্রাণ হারালো একজন। যে মারা গেল সে বরের কাকা। এই ঘটনাটি বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার চাঁপড়া ইউনিয়নের রফিযাদি গ্রামটিতে ঘটেছে।

মঙ্গলবার ছিল বিয়ে এবং সেখানে ছিল ওই গ্রামের মোতাহার মীরের ছেলে সজীব মীরের সঙ্গে আবুল কালামের মেয়ে রুনা বেগম। বৌভাতের অনুষ্ঠানে কনে পক্ষের থেকে ৫০ জন বড় পক্ষের অনুষ্ঠানে আসে, এবং সেখানেই খাবারের সময় মাংস কম দেওয়া দিয়ে নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে তর্ক বিতর্ক শুরু হয়।

এর পরেই সেই তর্ক-বিতর্ক পৌঁছে যায় মারামারিতে। এর ফলে মৃত্যু হয় ৬৫ বছরের এক ব্যক্তি যিনি বরের কাকা হন। এরপর এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে চলে যায় এবং ঘটনাস্থলে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। তবে এই ঘটনা সম্পর্কে কোনো রকম মামলা করা হয়নি।