শহর কলকাতার ২৫ টি হাসপাতালে সাধারণদের জন্য কোভিড টিকাকরণ শুরু হলো, দেখুন লিস্ট

গত সোমবার থেকেই সাধারণের জন্য গণহারে টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু হয়ে গেল রাজ্যে। এদিন করোনার দ্বিতীয় দফার টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু হয়েছে, যেখানে সাধারন মানুষ টিকা নিতে পারবেন। এতদিন শুধু করোনা যোদ্ধাদেরই টিকা প্রদান করার কাজ চলছিল। প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও এদিন টিকা নিয়েছেন। তিনিই দেশজুড়ে সাধারণ মানুষের জন্য টিকাকরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করলেন।

তবে প্রধানমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন, করোনা টিকা পাওয়ার ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষকে বেশ কিছু শর্ত মেনে চলতে হবে। সাধারণের টিকা গ্রহণের ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রেশন বাধ্যতামূলক বলে জানানো হয়েছে। কো–উইন, আরোগ্য সেতু মোবাইল অ্যাপের মতো অ্যাপগুলি ব্যবহার করে দেশের আমজনতাকে টিকা দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। এই দফায় টিকা পাবেন ৬০ বছর বয়সের বেশি যে কোনও নাগরিক এবং তার সঙ্গে ৪৫–৫৯ বছর বয়সি কো–মরবিড রোগীরাও টিকাকরণের আওতায় আসছেন।

এই টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু করতে সরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পাশাপাশি বেসরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলির সহযোগিতাও নিয়েছে কেন্দ্র। কেন্দ্রের স্বাস্থ্যকার্ডে চিকিৎসার সুবিধা মেলে এমন বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গের জন্য স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের সুবিধা মেলে এমন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানেও এই টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু হয়েছে। কো-মরবিড রোগীরা যদি চিকিৎসকের ছাড়পত্র পান তবেই তাদের টিকা প্রদান করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

আইজিপিএমইআর, এসএসকেএম, এনআরএস, কলকাতা মেডিকেল কলেজ, আর জি কর, ক্যালকাটা ন্যাশানাল মেডিকেল কলেজ, এম আর বাঙুর, বিদ্যাসাগর হাসপাতাল, গার্ডেনরিচ হাসপাতাল, ইএসআই হাসপাতাল, আইডি হাসপাতাল, লেডি ডাফরিন ভিক্টোরিয়া হাসপাতাল, ডাঃ বি সি রায় হাসপাতাল, শম্ভুনাথ পণ্ডিত হাসপাতাল, চিত্তরঞ্জন সেবা সদন এবং ট্রপিক্যাল মেডিসিন।

বেসরকারি হাসপাতালগুলি থেকে যদি কেউ টিকা নিতে চান তাহলে তাদের ২৫০ টাকা খরচ করতে হবে। সরকারি হাসপাতাল থেকে নিলে অবশ্যই বিনা পয়সাতেই মিলবে। কো–উইন অ্যাপের মাধ্যমে সোমবার দুপুর তিনটের মধ্যে নাম নথিভুক্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। এইদিন প্রথম দফায় ৫০ জনের বেশি টিকা পাননি‌।