পা’কি’স্তা’নে’র উপর ভ’র’সা নেই চাইনিজদের! আ’ত্ম’র’ক্ষা’র জন্য ব’ন্দু’ক নিয়েই কা’জ করছেন তারা

পাকিস্তানে নির্মাণাধীন চীন-পাকিস্তান Economic Corridor (CPEC)-এর সাইট থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় কিছু ছবি ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হচ্ছে। সেখানে চীনা ইঞ্জিনিয়াররা নিজেদের জীবন বাঁচাতে AK-47 কাঁধে নিয়ে কাজ করছেন। সম্প্রতি জঙ্গি হামলা হয়েছিল পাকিস্তানে চীনা ইঞ্জিনিয়ারদের বাসে । যার কারণে মারা গিয়েছিল চীনের বেশ কয়েকজন ইঞ্জিনিয়ার। আর তারপর থেকে চীনা নাগরিকদের মধ্যে আতঙ্কের আবহাওয়া সৃষ্টি হয়েছে।

পাকিস্তানে চীনা ইঞ্জিনিয়াররা যেখানে কাজ করেন, সেখানে তাঁদের সঙ্গে সর্বদাই মজুত থাকে পাকিস্তানের সুরক্ষাকর্মীরা । তারপরেও বিভিন্ন সময়ে চীনা ইঞ্জিনিয়াররা স্থানীয় নাগরিকদের বিক্ষোভের মুখে পড়েছে। শেষমেশ আবার চীনা ইঞ্জিনিয়ার ভর্তি বাসেও জঙ্গিরা হামলা চালিয়েছে। চীন কোটি কোটি টাকা খরচ করে একটি স্পেশ্যাল সিকিউরিটি ডিভিশন বানিয়েছিল। যার কাজ হল, পাকিস্তানে কর্মরত চীনা নাগরিকদের সুরক্ষিত রাখা। পাকিস্তানকেও দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে চীনা নাগরিকদের সুরক্ষার প্রদান করার, কিন্তু তা সত্ত্বেও পাক নিরাপত্তারক্ষীরা বারবার ব্যর্থ হয়েছে।

সম্প্রতি চীনা ইঞ্জিনিয়ার ভর্তি একটি বাসকে নিশানা করার পর থেকে চীনা ইঞ্জিনিয়াররা আরও অনেক বেশি সতর্ক হয়ে গিয়েছে। খাইবার পাখতুনখোয়া অঞ্চলে চীনা ইঞ্জিনিয়ার ভর্তি বাসকে জঙ্গিরা নিশানা করেছিল। যার জেরে ৯ জন চীনা নাগরিকের মৃত্যু হয়েছিল। চীনের তরফ থেকে এই হামলার তদন্তের জন্য পাকিস্তানে একটি স্পেশ্যাল টিমও পাঠানো হয়েছে। আর এই কারণেই চীনা ইঞ্জিনিয়ারদের এই ভাইরাল ছবি চর্চার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ তাঁরা এখন পাকিস্তানের নিরাপত্তারক্ষীদের উপর আর ভরসা করতে পারছে না। তাই তাঁরা নিজের সুরক্ষার ভার নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছে।

শোনা যাচ্ছে যে, চীনা ইঞ্জিনিয়াররা যেই হাতিয়ারগুলিকে নিজেদের সুরক্ষার জন্য ব্যবহার করছে, সেগুলি হাক্কানি নেটওয়ার্ক দ্বারা দেওয়া হচ্ছে। আদতে হাক্কানি নেটওয়ার্কও একটি জঙ্গি সংগঠন। তাঁদের কাজ হল, তালিবানদের মতই আফগানিস্তানকে সবসময় উত্তপ্ত করে রাখা।