বিমানবন্দর থেকে এই জিনিসগুলো বিনামূল্যে বাড়ি নি’য়ে আসা যা’য়

একটা সময় বিমান চড়তে পারা মানেই ধনী হয়ে যাওয়া, কিন্তু সেই সব দিন এখন অতীত। বিমানে এখন সবাই খুব সহজেই চড়তে পারে। আসলে বিভিন্ন বিমান সংস্থা আসার কারণে মধ্যবিত্তের বিমান চড়ার স্বপ্ন পূরণ হয়েছে।

ট্রেনের ভাড়া থেকে কিছু বেশী খরচ করলেই এখন বিমানে চড়া যায়। খুব কম সময়ের মধ্যেই বিমানে চড়ে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যাওয়া যায়। তবে হ্যা মধ্যবিত্ত কিন্তু টিকিটের মূল্য সর্বদা মাথায় রেখেই চলে।

সেই টিকিট কাটতে গেলে পাওয়া যায় না কোনো ধরনের ছাড়। কিন্তু সেই পয়সা উসুল করতে গেলে কি শুধু বিমানে চড়লেই হবে? না আছে কোনো অন্য উপায়? বিমান বন্দরে এমন কিছু জিনিস রয়েছে যা আপনি বাড়ি নিয়ে যেতে পারবেন বিনামূল্যেই।

আরো পড়ুন: ৬ হাজারের বে’শি শূন্যপদে নি’য়ো’গে’র বিজ্ঞপ্তি রাজ্য সরকারের

জলের বোতল চাইলেই আপনি বিনামূল্যে বাড়িতে নিয়ে আসতে পারবেন, যেখানে রেল স্টেশনে টাকা দিয়ে পানীয় জল কিনতে হয়, সেখানে বিমান বন্দরে সেটা সম্পূর্ণ বিনামূল্যেই পাওয়া যায়।

যারা সব সময় বিমান যাত্রা করে থাকেন তারা জানেন, একাধিক লাগেজ ট্যাগ বিনামূল্যেই পাওয়া যায় বিমান বন্দরে। যাত্রীদের একাধিক ব্যাগ থাকলে ট্যাগের মধ্যে নিজের নাম লিখে তা সহজেই চেনা সম্ভব হয়।

বিনামূল্যে ব্যাকটেরিয়া ইত্যাদি প্রতিরোধ করতে বিনামূল্যে স্যানিটাইজার দেওয়া হয়, তাছাড়া ফেস্ক মাস্ক, ফেস শিল্ড দেওয়া হয়। এর জন্য লাগে না কোনো আলাদা টাকা।

বিমানের ভেতরে তাপমাত্রা অনেকটাই কম থাকে। তাই বিমানে যাত্রীদের জন্য দেওয়া হয়ে থাকে কম্বল, মোজা। এগুলো সব বিনামূল্যেই দেওয়া হয়।

এদিকে বিমান বন্দরে পাওয়া যায় বিনামূল্যে ইনটারনেট সুবিধা। সব বিমান বন্দরেই রয়েছে ফ্রী ওয়াই ফাই সিস্টেম। যার কোনো দরকার পরে না পাসোয়ার্ড।