স্মৃ’তি আঁ’ক’ড়ে ধরে রাখতে অ’ভি’ন’ব পন্থা, মৃ’ত সদস্যদের দাঁত-চুল দিয়ে গ’হ’না তৈরি করেন এই মহিলা

আমাদের শরীর একদিন এই পঞ্চভূতে বিলীন হয়ে যায়। কিন্তু আমরা যে সমস্ত স্মৃতি নিয়ে বেঁচে থাকে তা মুছে ফেলা খুব কঠিন হয়ে যায়। মৃত মানুষকে আগলে রাখার চেষ্টা করি এই স্মৃতির দ্বারা। কিন্তু এই ভাবনাকে একেবারে বাস্তব রূপ দিয়ে ফেলেন অস্ট্রেলিয়ার এক মহিলা যার নাম জ্যাকুই উলিয়ামস।

এই পেশায় জুয়েলারি ডিজাইনার। তবে আজ তিনি গোটা পৃথিবীর কাছে প্রিয় মানুষকে কাছে রাখার মাস্টার হিসেবে পরিচিত। এটি তিনি করে থাকেন গয়না তৈরি করে।

ডিজাইনার জ্যাকুই উইলিয়ামসের কাছে সাধারণ গয়না একেবারেই অচল। বরং এমন একটি গয়না তিনি তৈরি করেছেন যার ফলে প্রিয় মানুষের কোন গল্প অথবা স্মৃতি আপনি নিজের কাছে ধরে রাখতে পারেন। তাই গয়না তৈরির ব্যাপারে তিনি বেছে নেন মৃত মানুষের দাঁত, চুল, নখ, এমনকি ভস্ম।

হঠাৎ এমন গয়না তৈরি করার প্ল্যান কিভাবে তিনি মাথায় নিয়ে এলেন, এই প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, আসলে প্রিয় মানুষটা যখন আমাদের ছেড়ে চলে যায়, সাধারণত তাদের ছবি দেখে আমরা তাদের স্মৃতি রোমন্থন করি। কিন্তু সেই স্মৃতিতে মৃত মানুষের কোন স্পর্শ থাকে না।

তাই আমার মাথায় এমন চিন্তা আসে, যদি মৃত্যুর পর শরীরের কোন অংশ যা নাকি নষ্ট হবে না, যে অংশ আমাদের স্মৃতির মধ্যে চিরকাল নিজেকে আবদ্ধ করে রাখবে, তেমন কোন অংশ দিয়ে যদি গয়না বানানো যায় তাহলে কেমন হয়।

অস্ট্রেলিয়ার এই ডিজাইনার জানিয়েছেন, প্রথমে আমি আমার চেনা কিছু মানুষদের দিয়ে কাজ শুরু করি। প্রথমদিকে মৃত মানুষের দাঁত এবং চুল ব্যবহার করে গয়না তৈরি করতাম আমি। এরপর ক্রেতা বেড়ে যাওয়ার ফলে তাদের পছন্দ অনুযায়ী আমি গয়না তৈরি করি।

গহনা প্রসঙ্গে একটি মজার ঘটনা শেয়ার করে তিনি বলেন, এক ক্রেতা আমাকে এসে বলেন, তার দাদু মাথায় বন্দুক চালিয়ে আত্মহত্যা করেছিলেন। আমি মৃতের মাথার খুলিতে আটকানো সেই গুলি দিয়ে একটি আংটি বানিয়ে দিয়েছিলাম তাকে।

এ গহনাগুলো শুধুমাত্র মানুষ মৃত মানুষকে কাছে পাবার জন্য ব্যবহার করেন তা কিন্তু নয়, এই গহনা গুলি মানুষ সাজিয়ে বাড়িতে রেখেও দেননা, অনেকেই গহনা গুলি নিজেই পরিধান করেন। এইভাবে হয়তো মৃত মানুষকে নিজের সঙ্গে জড়িয়ে রাখতে চান তারা।