যা দিয়েছেন তা’তে বাদামের টা’কাও হয় না, DA না দেওয়ায় অফিস কর্তাদের বেতন ব’ন্ধে’র নি’র্দে’শ কোর্টের

বারবার আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও কর্মীদের ডিএ-র বকেয়া মেটানো হয়নি। তাই এ বার রাজ্যের দুটি বিদ্যুৎ সংস্থা WBPDCL এবং WDSEDCL-এর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিল আদালত। দুই কোম্পানির কর্মকর্তাদের বেতন বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এই প্রতিষ্ঠান দুটির কর্মচারীরা দীর্ঘদিন ধরে তাদের বকেয়া বেতন পরিশোধ না করার অভিযোগ করে আসছেন। এই অভিযোগের ভিত্তিতে কর্মচারীদের ডিএ পরিশোধের সময় বেঁধে দেন আদালত। সেই সময় পেরিয়ে যাওয়ায় এবার অফিসারদের বেতন বন্ধের নির্দেশ দিলেন বিচারপতি রাজশেখর মন্থা।

বকেয়া ডিএ-র এক-পঞ্চমাংশ পরিশোধ না হওয়া পর্যন্ত কর্মচারীদের বেতন বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আগামী ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে এই আদেশ পালনের সুযোগ দিয়েছেন আদালত।

আরো পড়ুন: চাকরি তো দি’তে পারলেন না, টা’কা ফেরত দিন, তৃণমূল নেতার পা ধ’রে কান্নাকাটি

আদালতের নির্দেশ অনুসারে, 2019 সালে কোম্পানির দ্বারা ডিএর প্রথম কিস্তি দেওয়া হয়েছিল। 2020 সালের বকেয়া বেতনের জন্য কোনো টাকা পরিশোধ করা হয়নি বলে অভিযোগ রয়েছে।

অভিযোগ, টানা তিন বছর ধরে ওই সংস্থার কর্মীদের ডিএ বা মহার্ঘ ভাতা দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে রাজ্য সরকার। এরপর আদালতে যান শ্রমিকরা।

আদালতে বিচারক কোম্পানিকে ভর্ৎসনা করে বলেন, ‘টাকার জন্য কাঁদছেন? এটা আশ্চর্যজনক। বিচারপতি রাজশেখর মন্থা আরও বলেন, ‘যে টাকা দেওয়া হয়েছে তাতে বাদাম খাওয়ার টাকা নেই।

সংগঠনের কর্মকর্তাদের বার্তা দিয়ে তিনি বলেন, ‘শ্রমজীবী ​​মানুষ। তাদের ছাড়া কোম্পানি চলতে পারে না। এটি সঠিকভাবে ব্যবহার করুন।’