বাংলার প্র’ত্য’ন্ত গ্রা’ম পিংলার মেয়ে প্রণতি পা’ড়ি দি’চ্ছে’ন অলিম্পিক

প্রণতি নায়েক পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার অজ গ্রাম পিংলার মেয়ে। প্রণতি নায়েক খবরে খুব ছোট করে জায়গা পায়।২৬ বছর বয়সি বাংলার এই অ্যাথলিট ২০১৯ সালে উলানবাটারে আয়োজিত এশিয়ান আর্টিস্টিক জিমন্যাস্টিক চ্যাম্পিয়নশিপে ব্রোঞ্জ পদক জয় করেছিলেন।

করোনা অতিমারির কারণে বাতিল হয়ে যায় এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ। ফলে মহাদেশীয় কোটার মাধ্যমে টোকিও অলিম্পিক্সের টিকিট পাকা করলেন; বাংলার জিমন্যাস্ট প্রণতি নায়েক।

এশিয়া কোটার বিচারে শ্রীলঙ্কার এলপিতিয়া বাদালগের ঠিক পিছনেই রয়েছেন প্রণতি। গত ২৯ মে থেকে চিনের হ্যাংঝৌতে সিনিয়র এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ হওয়ার কথা ছিল যা বাতিল হয়ে যায়।

এরপর আগের ফলাফলের বিচারেই, প্রতিযোগীদের অলিম্পিক্সের টিকিট দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই নিয়মের ফলেই এবারের টোকিও অলিম্পিক্সের টিকিট পেলেন বাংলার জিমন্যাস্ট প্রণতি নায়েক।

এই প্রথমবার অলিম্পিক গেমসে অংশগ্রহণ করতে চলেছেন প্রণতি নায়েক। জাপানের টোকিও শহরে এই বছর অলিম্পিকের আসর বসতে চলেছে।

আর সেখানেই ভারতের প্রতিনিধিত্ব করবেন পশ্চিমবঙ্গের ঝাড়গ্রামের পিংলার এক সাধারণ পরিবারের মেয়ে। প্রণতির বাবা একজন বাস ড্রাইভার। গরিব পরিবারের প্রণতি এখন ভারতের পদক ভরসা।