অনেকদিন পর ছেলেকে কো’লে নিয়ে আবেগঘন পো’স্ট বিধায়ক চন্দনার, নি’মি’ষে ভাইরাল

বিধানসভা অধিবেশনে যোগ দেওয়ার জন্য প্রায় পাঁচদিন ধরে সন্তানের থেকে আলাদা ছিলেন শালতোড়া বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক চন্দনা বাউরী। অসুস্থ ছেলেকে ঘরে রেখে কলকাতার উদ্দেশ্যে পাড়ি দিয়েছিলেন চন্দনা। অধিবেশন শেষ হতেই তাই দ্রুত ছেলের কাছে ফিরে এসেছেন তিনি। ছেলের কাছে ফিরে ছেলেকে দেখতে পেয়ে তিনি ভীষণ খুশি। ছেলের সঙ্গে ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করেছেন চন্দনা।

একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির তরফ থেকে গরিব প্রার্থী ছিলেন চন্দনা বাউরী। তার স্বামী পেশায় একজন দিনমজুর। দিন আনা দিন খাওয়া সংসার তাদের। সেই পরিবারের গৃহিণী চন্দনা এখন বিধায়ক। প্রথমবার বিধানসভা গিয়ে বেশ ঘাবড়েই গিয়েছিলেন তিনি। তবে তার দলীয় সদস্যরা তাকে এ ক্ষেত্রে অনেক সাহায্য করেছেন। চন্দনা জানাচ্ছেন, শুভেন্দু অধিকারী এবং দলের অন্যান্য নেতাকর্মীরা তাকে অনেক কিছু বুঝিয়ে দিয়েছেন যেগুলি তিনি আগে জানতেন না।

গাড়ি ভাড়া করে শালতোড়া থেকে কলকাতার উদ্দেশ্যে পাড়ি দিয়েছেন চন্দনা। করোনাকালে এছাড়া তার কাছে আর আলাদা কোন উপায় ছিল না। এক্ষেত্রে তার মেজদা অবশ্য তাকে অনেক সাহায্য করেছেন বলেই জানিয়েছেন চন্দনা। শালতোড়া বিধানসভার বিজেপি বিধায়ক চন্দনা এখন তার এলাকার মানুষের উন্নয়নের কথাই ভাবছেন। যারা তার প্রতি আস্থা প্রদর্শন করেছেন, তাদের উন্নয়নের জন্য কাজ করতে চান তিনি।

সম্প্রতি স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রসঙ্গে ক্ষোভ উগরে দেন চন্দনা। তিনি বলেন পঞ্চায়েতে যদি কেউ নিজের সমস্যার কথা জানাচ্ছেন তাহলে তাদের চন্দনার কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন যদি পঞ্চায়েতের কাজ তাকেই দেখতে হয় তাহলে পঞ্চায়েতটাও যেন চন্দনার হাতেই তুলে দেওয়া হয়। শুধু শালতোড়া এলাকার বাসিন্দারাই নয়, সারা বাংলার মানুষের নজর এখন চন্দনার দিকে।