উত্তরবঙ্গে চ’ও’ড়া হচ্ছে “ব্ল্যাক ফাঙ্গাস”-র থা’বা, ইতিমধ্যে মৃ’ত্যু ২ মহিলার

ব্ল্যাক ফাঙ্গাস এবার পশ্চিমবঙ্গের মাটিতেও ক্রমশ ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে মানুষদের ব্ল্যাক ফাঙ্গাস রোগে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যাচ্ছিল। এবার উত্তরবঙ্গে এক মহিলার শরীরে ব্লাক ফাঙ্গাস রোগ বাসা বাঁধার খবর পাওয়া গিয়েছিল। গতকাল উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজে সেই মহিলার মৃত্যু হলো। একই দিনে গজলডোবা এলাকার আরেক মহিলারও ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজে যে মহিলার মৃত্যু হয়েছে তিনি শিলিগুড়ি প্রধাননগরের বাসিন্দা বলে জানা যাচ্ছে। সম্প্রতি তাঁর চোখে সমস্যা দেখা দেয়। উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পরীক্ষা নিরীক্ষার সময় জানা যায় তিনি মিউকরমাইকোসিস বা ব্ল্যাক ফাঙ্গাস রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। প্রসঙ্গত উত্তরবঙ্গে প্রথম ওই মহিলার শরীরে ছত্রাক বাসা বাঁধার খবর পাওয়া যায়।

ছত্রাক বাসা বাঁধার খবর পাওয়া মাত্রই ওই মহিলার অস্ত্রোপচার করানো হয় এবং তার চোখ এবং মুখের বেশিরভাগ অংশ অপারেশন করে বাদ দিয়ে দেওয়া হয়। তারপর থেকেই অবশ্য তিনি হাসপাতালে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে ভর্তি ছিলেন। কিন্তু চিকিৎসায় সেভাবে সাড়া দিচ্ছিলেন না তিনি। মঙ্গলবার রাতে তার মৃত্যু হল।

এদিকে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস রোগে আক্রান্ত হওয়ার কারণে বুধবার সকালেও গজলডোবা এলাকার আরেক মহিলার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। প্রসঙ্গত পশ্চিমবঙ্গে ব্লাক ফাংগাস রোগের মৃতের সংখ্যা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। মঙ্গলবার বাঁকুড়াতে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। চিকিৎসকদের অনুমান করোনা চিকিৎসায় মাত্রাতিরিক্ত স্টেরয়েড ব্যবহারের কারণেই রোগীদের শরীরে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের আক্রমণ বেড়ে চলেছে‌।