রাজ্য পুলিশে বি’রা’ট র’দ’ব’দ’ল, এক ধা’ক্কা’য় ৫৫টি পদে IPS বদল

রাজ্যের প্রশাসনিক স্তরের একাধিক রদবদল আনলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্য সচিব এবং স্বরাষ্ট্র সচিব পদের রদবদলের পর এবার মুখ্যমন্ত্রী পুলিশের ৫৫টি পদে বড়োসড়ো পরিবর্তন ঘটালো নবান্ন। সম্পূর্ণ পুলিশ প্রশাসনকেই নতুন ভাবে সাজালেন মুখ্যমন্ত্রী। ৫২ জন আইপিএস (IPS) আধিকারিককে বদলি করা হয়েছে। কলকাতা পুলিশেরও একাধিক ডিসিকে বদলি করা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

উল্লেখ্য এরমধ্যে আবার বেশ কয়েকজনের পদের অবনতিও হয়েছে। মেদিনীপুর রেঞ্জের ডিআইজিকে কম্পালসরি ওয়েটিংয়ে পাঠিয়েছে নবান্ন। কলকাতার নতুন জয়েন্ট সিপি (এসটিএফ) হচ্ছেন ভি সলোমন নেশাকুমার। বারাসাত রেঞ্জের ডিআইজি হয়েছেন প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। মালদহের ডিআইজি হলেন প্রবীণ কুমার ত্রিপাঠি। প্রসঙ্গত বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা প্রবীণ কুমারের এলাকাতেই হামলার মুখে পড়েছিলেন। সেই সময় তার বদলির দাবিতে সরব হয়েছিল বিজেপি।

মেদিনীপুর রেঞ্জের নতুন ডিআইজি হলেন শ্যাম সিং। কুণাল আগরওয়ালকে সরিয়ে তিনি এই পদে এসেছেন। কুণাল আগরওয়ালের বিরুদ্ধে অভিযোগ নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চোট পেলেও তাকে ধারে কাছে কোথাও দেখা যায়নি। আবার মুখ্যমন্ত্রীর ডাকা বৈঠকেও তিনি অনুপস্থিত ছিলেন। এবার তাকে কম্পালসারি ওয়েটিংয়ে পাঠালো নবান্ন। অপরপক্ষে রাজ্যের দুর্নীতি দমন শাখার এসপি হলেন কোটেশ্বর রাও।

ঝাড়গ্রাম এলাকাতে এক মাসে চারবার পুলিশ সুপার বদলি করা হলো। মুখ্যমন্ত্রীর শপথ গ্রহণের দিন পুলিশ সুপার ইন্দিরা মুখোপাধ্যায়কে বদলি করে ধৃতিমান সরকারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। ধৃতিমান সরকারকে পুলিশ সুপার করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরপরই আবার তাকে বাঁকুড়ায় বদলি করে দেওয়া হয়। প্রসঙ্গত মাওবাদী দমনে কারিগরি পদক্ষেপে দক্ষ অফিসার ছিলেন ধৃতিমান সরকার।