পরিচালকদের সা’থে শুইনি! তাই বলিউডে কা’জ পা’ই না: নার্গিস ফাকরি

রকস্টার ছবিতে আমরা তাকে দেখতে পেয়েছিলাম অসাধারণ অভিনয় করতে। তিনি হলেন নার্গিস ফাখরি। রনবির কাপুর এবং নার্গিসের অভিনীত এই সিনেমাটি যথেষ্ট জনপ্রিয়তা লাভ করেছিল বলিউডে। আজও এই সিনেমার বিভিন্ন গান আমাদের মুখে মুখে শোনা যায়। তবে জনপ্রিয় এই ছবির অভিনেত্রী হয়েও কেন নার্গিস ফাখরি বলিউডে নিজের জায়গা করে নিতে পারলেন না? কেন তাকে সেই ভাবে অন্য কোন সিনেমাতে দেখা গেলো না? এই সবকিছুর প্রশ্নের উত্তরে চলুন জেনে নেওয়া যাক অভিনেত্রী কি বলছেন।

ছবিতে ভালো অভিনয় করার ক্ষমতা থাকলেই হয় না। রকস্টার ছবির পরে মাদ্রাস ক্যাফে, কেক এবং হাউসফুল ৩ এই তিনটি ছবিতে আলাদ আলাদা চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গেছে তাকে। কিন্তু তারপরও তাকে দেখা যায়নি বড় পর্দায় সেই ভাবে অভিনয় করতে। নিজের ক্যারিয়ারের এই অনুন্নতির জন্য তিনি দায়ী করেছেন সমস্ত বলিউডকে। বলিউডের বিরুদ্ধে বেশ কিছু বিস্ফোরক মন্তব্য করতে শোনা যাচ্ছে তাকে।

বরাবরই নার্গিস বিরোধী ছিলেন নগ্নতা অথবা যৌন দৃশ্যের। মডেলিং করলেও তিনি কখনও নগ্ন শুট করেন নি সেই ভাবে। একটি নামী ম্যাগাজিনের ফটোশুটের অফার শুধুমাত্র ফিরিয়ে দিয়েছিলেন তিনি নগ্ন শুরু করবেন না বলে। বলিউডে কাজ করতে গেলে পরিচালকের যে চাহিদা পূরণ করতে হয় তা তিনি কখনই করতে রাজি হননি।

ভালো মানের কাজের ক্ষমতা থেকেই তিনি কাজ পাবার আশা করতেন চিরকাল। অভিনেত্রী জানিয়েছেন, বলিউডের শুধুমাত্র জনপ্রিয়তা পাওয়ার জন্য আসিনি। সব সময় চেষ্টা করছি ভালো কাজের দ্বারা নিজেকে প্রমাণ করতে। কিন্তু কোন ছবির জন্য আমি পরিচালকের সঙ্গে নগ্ন হয়ে বিছানায় শুয়ে পড়তে পারবো না। আর ঠিক এই কারনে আমার হাত থেকে একাধিক প্রজেক্ট বেরিয়ে গেছে। অনেক বার অনেক দাবি পূরণ না করার ফলে আমার হাত থেকে কাজ বেরিয়ে গেছে।

একসময়ের নীল তারকা ব্রিটানি দে লা মোরার সংগে সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, একের পর এক কাজ হাত থেকে যখন চলে যায় তখন অবশ্যই খারাপ লেগেছিল কিন্তু নিজের সম্মান এবং মূল্যবোধকে সারা জীবন আমি অক্ষুন্ন রাখতে পেরেছি। আমার কাছে আমার মূল্যবোধ অনেক বেশি দামি। প্রসঙ্গত, সম্প্রতি বলিউড থেকে দূরে তিনি তার প্রেমিক জাস্টিন সন্তোষের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন।