বিয়ের পরেও কি মেয়ের না’মে রেশন তুলছেন? স’ম’স্যা’য় পড়তে পারেন আপনি, জানুন না’ম বা’দ দেওয়ার প’দ্ধ’তি

ভোটার আইডেন্টি কার্ড এবং প্যান কার্ড, আধার কার্ডের পাশাপাশি রেশন কার্ড এই মুহূর্তে গুরুত্বপূর্ণ একটি সরকারি নথি। গত বছর থেকে এই নথি আমাদের কাছে আরো বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। আপনি যে রাজ্যের বাসিন্দা হন না কেন, ওয়ান নেশন ওয়ান রেশন কার্ড প্রকল্পে সাহায্যে দেশের যেকোন প্রান্তে গিয়ে আপনি রেশন কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন। এদিকে পশ্চিমবঙ্গের শুরু হয়ে গেছে দুয়ারে রেশন প্রকল্প, যার সাহায্যে আপনি বাড়িতে বসেই পেয়ে যাবেন চালডাল। সারাদেশে যখন রেশন কার্ড কে নিয়ে এত গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে, তখন রেশন কার্ড দিয়ে আপনার কোন রকম গরিমসি করা ঠিক নয়।

তবে অনেকেই অন্যের নামে অথবা বলা যেতে পারে অন্যের কার্ডের রেশন তোলেন। অনেকেই আছেন যারা নিজেদের কার্ডের রেশন তোলেন না, সেই কার্ড ব্যবহার করে অন্য ব্যক্তি রেশন তোলেন। তবে বর্তমান সমাজে এটি এক প্রকার অপরাধের সমান। অনেকেই আছেন যারা বিয়ের পর নিজের রেশন কার্ড পাল্টান না। বিয়ের পর মেয়েদের পরিবারের কাছে তার রেশন কার্ড থেকে যায়। সেই বিবাহিত মেয়ের রেশন কার্ড দেখিয়ে দিনের পর দিন ভুলে যান তার বাপের বাড়ির লোকেরা। কিন্তু আপনি যদি এইরকম কাজ করে থাকেন, তাহলে এখন থেকেই সাবধান হয়ে যান। ভবিষ্যতে আপনি যদি এমন কাজ করতে গিয়ে ধরা পড়েন তাহলে মোটা টাকা জরিমানা হতে পারে আপনার।

রেশন কার্ড সম্পর্কিত নিয়ম অনুসারে, মেয়েদের রেশন কার্ড তার পরিবার থেকে বিয়ের পর সরিয়ে দিতে হবে। বিয়ের পর যত দ্রুত সম্ভব রেশন কার্ড শশুর বাড়ির ঠিকানায় পাল্টে দিতে হবে। বিয়ের পরেও যদি রেশন কার্ডের মাধ্যমে বাপের বাড়ির লোকেরা দিনের-পর-দিন রেশন তুলতে থাকেন তা কিন্তু অবৈধ।

রেশন কার্ডের মাধ্যমে সরকার জনগণকে ভর্তুকি যুক্ত খাদ্য শস্য খুব কম দামে সরবরাহ করে থাকেন। যে কোন রাজ্যে রেশন কার্ড সেই রাজ্য সরকার জারি করে থাকে।। রেশন কার্ডের মধ্যে পরিবারের প্রধান এর নাম এবং অন্যান্য সদস্যদের নাম থাকে। কিন্তু অনেকেই পরিবারের কোনো এক সদস্যের নাম জিসান কার থেকে কিভাবে সরাতে হয় তা জানেন না। রেশন কার্ড থেকে নাম সরানোর জন্য আপনাকে খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তার কার্যালয় একটি আবেদনপত্র জমা দিতে হবে। এ ছাড়াও অনেকে মৃত ব্যক্তির রেশন কার্ড ব্যবহার করে থাকেন সেটাও কিন্তু একেবারে অবৈধ। মৃত ব্যক্তির নাম সরানোর জন্য আপনাকে একই পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে।

বিবাহিত মেয়েদের রেশন কার্ডের নাম সরানোর জন্য তাদের আধার কার্ড এবং রেশন কার্ডের একটি ফটোকপি এবং বিয়ের সার্টিফিকেট খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে জমা করতে হবে। এছাড়া রেশন ডিলারের মাধ্যমে এই আবেদন পত্র আপনি জমা করতে পারেন। এছাড়া অনলাইনে এই কাজ করতে পারেন আপনি। পরিবারের কোন সদস্যের নাম যদি রেশন কার্ড থেকে বাদ দেন তাহলে food.wb.gov.in ওয়েবসাইটে গিয়ে তাঁর আধার কার্ড, রেশন কার্ড এবং বিয়ের সার্টিফিকেটের যাবতীয় নথির ফোটোকপি আপলোড করতে হবে। তার পরই সেখান থেকে আপনি সেই সদস্যের নাম বাদ দিতে পারবেন।