“কৃষকবন্ধু” প্র’ক’ল্পে বাড়লো ভা’তা’র প’রি’মা’ণ, সিলমোহর প’ড়’লো মন্ত্রীসভার

একুশের নির্বাচনী লড়াই লড়ার আগে ইশতেহারে তৃণমূলের তরফ থেকে রাজ্যবাসীর জন্য একাধিক পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। তার মধ্যে অন্যতম হলো রাজ্যের কৃষক বন্ধু প্রকল্পের ভাতা বাড়ানো। ক্ষমতায় এসে সেই কথা রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কৃষক বন্ধু প্রকল্পের কৃষকদের বার্ষিক ভাতা ৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ১০ হাজার করে দিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার মন্ত্রিসভায় আয়োজিত একটি বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

নবান্নের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, এতদিন পর্যন্ত কৃষকেরা ভাতা হিসেবে প্রতিবছর ৫ হাজার টাকা করে পেতেন। তবে এবার থেকে সেই ভাতা এক লাফে ১০ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে। প্রতিবছর কৃষকদের একাউন্টে এই টাকা জমা পড়ে যাবে। আজ রাজ্যের মন্ত্রী সভায় এই সিদ্ধান্তে সীলমোহর দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তে স্বভাবতঃই কৃষকেরা ভীষণ খুশি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, মমতা সরকারের কৃষক বন্ধু প্রকল্পের সঙ্গে মোদি সরকারের কিষান সম্মান নিধি যোজনার প্রতিযোগিতায় প্রথম থেকেই লেগে আছে। একুশের বিধানসভা নির্বাচনকালে সেই প্রতিযোগিতা আরো বৃদ্ধি পায়। কৃষিপ্রধান বাংলার কৃষকদের মন জয় করতে কেন্দ্রীয় সরকার প্রতিবছর ছয় হাজার টাকা ভাতা দেওয়ার অঙ্গীকার করেছিল। সেই হিসেবে বিগত দুই বছরের বকেয়া এবং এই বছরের ভাতা মিলিয়ে বাংলার প্রত্যেক কৃষকের একাউন্টে ১৮ হাজার টাকা ঢুকে গিয়েছে।

কেন্দ্রীয় নেতারা অবশ্য আশ্বাস দিয়েছিলেন যে বাংলায় ক্ষমতায় এলে এই ভাতা বাড়িয়ে তারা ১০ হাজার টাকা করে দেবেন। তবে বাংলায় বিজেপি হেরে যাওয়ার পর স্বভাবতই সেই আশ্বাস পূরণ করার ক্ষেত্রে বিশেষ বাধ্যবাধকতা নেই। তবে ক্ষমতায় আসার পর মমতা সরকার অবশ্য কৃষকদের সেই আশ্বাস পূরণ করেছেন। এর ফল উপকৃত হবেন প্রায় কয়েক লক্ষ কৃষক।