১ সেপ্টেম্বর থেকে চা’লু হচ্ছে “লক্ষ্মীর ভান্ডার”, জানুন কিভাবে মহিলারা না’ম ন’থি’ভু’ক্ত করাবেন

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে প্রকাশিত নির্বাচনী ইশতেহারে রাজ্যের গৃহবধূদের জন্য বিশেষ প্রকল্প চালু করার কথা ঘোষণা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন যে তৃতীয়বারের জন্য সরকার গঠন করলে সরকারের তরফ থেকে বাংলার মহিলাদের স্বনির্ভর করে তোলার লক্ষ্যে জেনারেল ক্যাটাগরির মহিলাদের ৫০০ টাকা এবং এসসি অথবা এসটি তালিকাভুক্ত মহিলাদের ১ হাজার টাকা অনুদান দেওয়া হবে।

সম্প্রতি নবান্নের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে আগামী ১৬ অগস্ট থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর রাজ্য জুড়ে চলবে ‘দুয়ারে সরকার’ প্রকল্প। আর এই প্রকল্পে আবেদনপত্র নিয়ে গেলেই লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত হয়ে যাবে। মুখ্যমন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, পহেলা সেপ্টেম্বর থেকে মহিলারা এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে পারবেন। গত বছরের মতো এই বছরেও খাদ্য সাথী, স্বাস্থ্য সাথী,কন্যাশ্রী, রূপশ্রী সব প্রকল্পের জন্য নাম নথিভুক্ত করতে পারবেন দুয়ারে সরকার প্রকল্পতে।

৬০ বছর পর্যন্ত যে কেউ আবেদন করতে পারবেন এই প্রকল্পে। ১ সেপ্টেম্বর থেকেই টাকা দেওয়া হবে। ২৫ থেকে ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত সব মহিলাই এই প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন। সারা রাজ্য জুড়ে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের প্রচার কার্যক্রমের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এর জন্য প্রচারপত্র বিলি করার পাশাপাশি লোকগীতিকারদেরও পথনাটিকা ‌মারফত প্রচারকার্যে নামানোর নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

প্রায় ১ কোটি ৬৯ লক্ষের বেশি মহিলা এই প্রকল্পের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত হতে চলেছেন। স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকলেই এই প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন মহিলারা। লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের রূপায়নের জন্য চলতি আর্থিক বছরের বাজেটে ১১ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে রাজ্য সরকার।