মুকুলের তৃণমূলে যো’গ, এবার কি তবে দ’ল ছাড়ছেন দেবাংশু? রাজনৈতিক ম’হ’লে প্র’শ্ন

দেবাংশু কি এইবার তাহলে তৃণমূল ছেড়ে দেবেন? এ বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে রাজনৈতিক মহলে। গত বছরের শেষের দিকে বিধানসভার ২০২১ এর ভোটকে কেন্দ্র করে তৈরি হয়েছিল অনেক গল্প যেখানে, একাধিক তৃণমূল নেতারা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিল। অবশেষে যখন তৃণমূলের হাতেই রাজ্যের শাসন ব্যবস্থা থাকলো তখন দেখা গেল অনেক তৃণমূল ত্যাগী বিজেপি নেতারা তৃণমূলে আবার আসার অনুরোধ করেছে।

কৃষ্ণনগরে বিজেপির হয়ে লড়েছিল মুকুল রায় এবং সেখানে তিনি জিতে ছিলেন, কিন্তু হঠাৎই তার তৃণমূলে ফেরত আসার কথা শোনা গেল। মুকুল রায় বিজেপি ছেড়ে এবার তৃণমূলে যোগদান করলেন। একসময় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছিল সেই আবার তৃণমূলে ফিরে আসার পরে অনেক প্রশ্ন উঠছে রাজনৈতিক মহলে। মুকুল রায়কে নিয়ে প্রশ্ন ওঠা স্বাভাবিক কিন্তু হঠাৎ কেন এই বিষয়ে নাম জড়িয়ে গেল দেবাংশুর?

ব্যাপারটি হলো মুকুল রায় এবং শুভ্রাংশু যখনই তৃণমূলের আবার ফিরে এলেন তার পরপরই দেবাংশু ভট্টাচার্যের একটি অনেকদিন আগের পোষ্ট ভাইরাল হয়ে গেল সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে। দেবাংশুর পোস্টটিতে লেখা ছিল যে, “যে সমস্ত নেতারা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছে তারা যদি আবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্ত্রী হওয়ার পর ফিরে আসে, তাহলে তিনি তৃণমূল ছেড়ে কংগ্রেসকেই সমর্থন করবেন”।

এই পোস্টটি দেবাংশু ২০১৯ সালে করেছিলো। আরও লিখেছিল যে, “তিনি কখনই বেইমানি করেন না এবং পছন্দ করে না সেইজন্য এইরকম কিছু হলে তিনি অবশ্যই অন্য দলকে সমর্থন করবেন, তৃণমূল ছেড়ে দেওয়ার পর যদি তিনি বেইমান হয় তাহলে সে বেইমান হিসেবে নিজে গর্বিত বোধ করবে”।

দেবাংশুর পুরনো পোস্টটি ভাইরাল হওয়ার সাথে সাথেই যথেষ্ট প্রশ্ন উঠেছে রাজনৈতিক মহলে। সোশ্যাল মিডিয়াতে দাবি উঠেছে যে, দেবাংশু যে কথা দিয়েছিল সেটা করুক, কারণ পুরনো তৃণমূল ত্যাগী নেতারা আবার তৃণমূলের ফিরে আসছে।

দেবাংশুর পুরনো পোস্টটি ভাইরাল হওয়ার পরেই ফেসবুকে আসেন তিনি এবং একটি লাইভ করেন যেখানে তিনি বলেন যে,” যখন তিনি ওই পোস্টটি করেছিলেন তখন তিনি শুধুমাত্র একজন সাধারন সমর্থক হিসেবে কাজ করতেন, তখনকার ভাবনা-চিন্তার সঙ্গে এখনকার ভাবনাচিন্তা কখনোই মেলালে হবেনা”। যদিও এই ধরনের কথার পরেও নেটিজেনরা তার এই পোস্টটিকে ঘিরে তাকে নিয়ে চর্চা করা এখনো থামাননি।