আপনার SBI ATM কার্ড? তবে জানুন এই কার্ড সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

সময় যত এগোচ্ছে, প্রযুক্তির ততো উন্নতি ঘটছে। প্রযুক্তির উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গেই মানুষের অনেক জটিল অফিশিয়াল কাজে গতি এসেছে। উন্নত প্রযুক্তির সহায়তায় আগের তুলনায় অনেক সহজেই যেকোনো অফিশিয়াল কাজ মুহূর্তের মধ্যে সম্পন্ন করা যায়। এতে যেমন সাধারণের উপকার হয়েছে, তেমনই অপরাধ মনস্কদেরও বেশ সুবিধা হয়েছে। অপরাধীরাও সাধারণের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে নিত্য নতুন ফন্দি আঁটছে।

দেশের বিভিন্ন প্রান্তেই এই কার্যকলাপ চলছে। প্রতারকের হাতে পড়ে নিত্যদিন সর্বস্বান্ত হচ্ছেন মানুষ। তাহলে প্রতারকদের হাত থেকে বাঁচার উপায় কি? সম্প্রতি স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার তরফ থেকে গ্রাহকদের জন্য একটি নির্দেশিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এই নির্দেশিকায় নয়টি গাইডলাইন প্রকাশ করেছে এই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক সংস্থাটি। এই নির্দেশিকার মাধ্যমে সংস্থার তরফ থেকে গ্রাহকদের সর্বদা সচেতন থাকার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সংস্থার তরফ থেকে জানানো হচ্ছে, গ্রাহক যেন নিজের এটিএম কার্ডের পিন নম্বর, ব্যাঙ্কের ডিটেলস কোনোভাবেই কারোর সঙ্গে শেয়ার না করেন। শুধু তাই নয়, এটিএম, পিওএস মেশিনে এটিএম কার্ড ব্যবহারের সময় সর্বদা কিপ্যাড ঢেকে রাখুন। অন্য কেউ যাতে কোনোভাবেই আপনার পাসওয়ার্ড দেখে নিতে না পারে। আর হ্যাঁ, পিন নম্বর কখনোই কাউকে বলবেন না। এমনকি কার্ডেও লিখে রাখবেন না।

প্রতারকেরা অনেক সময় ফোন করে অথবা মেসেজ করে বিভিন্ন প্রলোভন অথবা ভয় দেখিয়ে এটিএম কার্ড অথবা পিন নম্বর জেনে নিয়ে প্রতারণা করে থাকে। এই সকল ফোন অথবা মেসেজ এড়িয়ে চলুন। এটিএমে লেনদেন হয়ে যাওয়ার পর ট্রানজাকশন রশিদটি নিজের হেফাজতে রাখুন অথবা ভালো করে ছিঁড়ে ফেলে দিন।ট্রানজাকশন শুরু করার আগে এদিক ওদিক কোথাও স্পাই ক্যামেরা আছে কিনা তাও একবার দেখে নিন। ফোন নম্বরের সঙ্গে অ্যাকাউন্ট নাম্বার সংযুক্ত রাখুন, তাহলে আপনার অজান্তে ট্রানস্যাকশন হলে তা ধরতে পারবেন।