আর মাত্র ১০ দিন, বাজারে আসতে চলেছে বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন, দাবি রাশিয়ার

এখন দেশের পরিস্থিতি কোনোভাবেই ভালো না, দৈনিক ৫০ হাজার করে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে, ইতিমধ্যে দেশের মোট সংক্রমণ ১৫ লাখ ছাড়িয়ে ১৬ লাখের পথে, মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়ছে হু হু করে, প্রায় ৩৬ হাজার জন, সারা বিশ্বের কথা যদি বলতে হয় সেখানে দেখা যায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৭১ লাখ ৮৮ হাজার জন, তার মধ্যে মোট ৬ লক্ষ ৭০ হাজার ২০৭ জনের ইতিমধ্যেই মৃত্যু হয়েছে, তাই এমন ভাবে চলতে থাকলে, আরও কতটা যে অবনতি ঘটবে সেটা বলা মুশকিল।

বিশ্বের সমস্ত বিজ্ঞানীরা তাদের মতো করে ভ্যাক্সিন তৈরীর কাজ চালিয়েই যাচ্ছে, কিন্তু এতোদিন পর্যন্ত কোনো ইতিবাচক সংবাদ দিতে পারে নি কেউই। কিন্তু এবার রুশ বিজ্ঞানীরা এই পরিস্থিতির মধ্যেই দারুণ ও চমকপ্রদ একটি খবর দিয়েছে। আসলে রাশিয়ার বিজ্ঞানীরা এই ভ্যাক্সিন তৈরীর কাজ অনেকটাই এগিয়ে নিয়ে গেছিলও, এমন খবর পাওয়া গিয়েছিল, তবে তার পরে আর কোনো খবর পাওয়া যায় নি, কিন্তু এবার তারা ফের খুশির খবর নিয়ে হাজির হয়েছে।

রাশিয়ার গামালেই ইন্সটিটিউট অব এপিডেমিওলজি এন্ড মাইক্রোবাইয়োলজি তারা এই প্রতিষেধক তৈরীর কাজ করছিল, আর তার পরেই সেখান থেকে মঙ্গলবার সংবাদ মাধ্যমের কাছে তারা জানায় যে, আগামী ১০-১২ আগষ্টের মধ্যেই বাজারে চলে আসবে বিশ্বের সর্বপ্রথম ভ্যাক্সিন। আজ্ঞে হায়, বিশ্বের সর্বপ্রথম ভ্যাক্সিন, যেটা বানিয়ে ফেলেছে রুশ বিজ্ঞানীরা, এখন তার শেষ পর্বের কাজ চলছে কিছু, সেগুলো হয়ে গেলেই বাজারে চলে আসবে বহু প্রতীক্ষিত করোনা ভ্যাক্সিন। আসলে ইতিমধ্যে তৃতীয় পর্বের ট্রায়াল শেষ করে ফেলেছে রুশ বিজ্ঞানীরা। তাই এবার অনেকটাই সাহস নিয়েই তারা ঘোষণা করেছে যে, আগামী ১০-১২ আগষ্টের মধ্যেই বাজারে আসবে ভ্যাক্সিন।

রবিবার রাশিয়ার সেকেনভ ফার্স্ট মস্কো স্টেট মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞানীরা, তাদের শেষ পর্বের ট্রায়াল শেষ করেছে, আর তার পরেই মঙ্গলবারে এই খুশির খবর শুনিয়েছে। আগেই এই খবর সংবাদ মাধ্যমকে জানায় গামালেই ইন্সটিটিউট অব এপিডেমিওলজি এন্ড মাইক্রোবাইয়োলজির ডিরেক্টর আলেকজান্ডার গিন্সট বার্গ, যে আমরা ১০ থেকে ১২ আগষ্টের লক্ষ্য মাত্রা নিয়েই কাজ করে চলছিলাম। এবার সেটার মধ্যেই সরকারী শিলমোহর পরে গেলো, ও রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রী মিখাইল জানালো, আর দেরি নেই, বিশ্বের সর্বপ্রথম করোয়ান ভ্যাক্সিন বাজারে এসে যাবে আগষ্টেই।

এদিকে রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রী জানিয়েছেন, বহু প্রতীক্ষিত এই করোনা ভ্যাক্সিন বাজারে চলে আসবে আগষ্টের মধ্যেই, তার অনুমতি দেওয়া হয়েছে, রাশিয়া এবার মোট ৪ কোটির মতো ডোজ বানাতে সক্ষম হবে, তবে এর পাশাপাশি কিন্তু চলবে তৃতীয় ট্রায়ালও। বিভিন্ন দেশে তৃতীয় ট্রায়ালও চলবে সেটাও তিনি জানিয়েছেন, সৌদি থেকে শুরু করে আরহ আমিরশাহিতে, এটার মানে একটাই এখন খুব দ্রুততার সাথে যেমন ট্রায়াল চলবে, সাথে বাজারের ছাড়ার ক্ষেত্রেও দ্রুততা আনার কাজ করবে রাশিয়া।