যে সকল মহিলারা বেশি বয়সে মা হন, তাঁরাই ভালো শিক্ষা দিতে পারেন সন্তানদের, বলছে সমীক্ষা

আমরা সকলেই মনে করি যে বেশি বয়সে যদি সন্তান নেওয়া যায় তাহলে শরীরে সমূহ ক্ষতি হতে পারে। বয়স বাড়ার সাথে সাথে মানুষের বিশেষ করে নারীদের প্রজনন ক্ষমতা অনেকটাই কমে যায়। এছাড়াও বেশি বয়সে যদি মা হতে চান তাহলে বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। ডায়বেটিক সহ হাইপার টেনশন সহ নানান জটিলতা দেখা দিতে পারে শরীরে। মোট কথা ৩০ বছর পেরোনোর আগেই সন্তান জন্ম দেবার কথা পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা।

কিন্তু সম্প্রতি সমীক্ষায় পাওয়া যাচ্ছে একেবারে অন্যরকম কথা। বেশি বয়সে মা হতে গেলে নাকি অনেক সুবিধা রয়েছে। দেখা যাচ্ছে যে যেসব মহিলারা বেশি বয়সে সন্তানের জন্ম দিচ্ছেন তারা কম বয়সী মেয়েদের থেকে বেশি ভালো মানুষ করতে পারছেন তাদের সন্তানদের।দেখে নিন মা হবার কি কি সুবিধা রয়েছে বেশি বয়সে।

গত দুই দশকের মধ্যে ছোটবেলায় বিয়ে অথবা মা হবার সংখ্যা অনেকটাই কমে গেছে মেয়েদের মধ্যে। মেয়েরা আজকে অনেকটাই বেশি স্বাস্থ্যসচেতন। তাদের ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবনাচিন্তা অনেকটাই। বেশি বয়সে বিয়ে করার পর স্বাভাবিক ভাবে সন্তান নিতে আরো কিছুটা দেরি হয়ে যায়।ফলে একটি সন্তানের মা হতে গিয়ে একজন মহিলার বয়স হয়ে যাচ্ছে ৩০।

ডেনমার্কের আলহাস ইউনিভার্সিটি স্কুল অব বিজনেস অ্যান্ড সোশ্যাল সাইন্স এর সমীক্ষায় জানা গেছে যে, যে সমস্ত মহিলারা 30 বছরের পরে সন্তানের জন্ম দেন তারা সন্তানদের ওপর বাড়তি বোঝা চাপিয়ে দেয় না।তাদের সন্তানরা বড় হবার পথে অনেকটাই স্বাধীনতা পেয়ে থাকে।

বেশি বয়সে মা হলে সন্তানদের সঙ্গে সম্পর্ক অনেক বেশি মজবুত হয়। সন্তানেরা লেখাপড়ায় অনেক বেশি মনোযোগ দিতে পারে। বেশি বয়সে সন্তান নিলে মানসিক পরিণতি অনেকটাই বেশি হয়ে যায় মেয়েদের।তাই সন্তান বড় করার যে মানসিক চাপ সেটা সহজে নিতে পারে মেয়েরা। সন্তানকে কঠিন লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত করতে পারেন মেয়েরা।

সমীক্ষায় আরও দেখা যাচ্ছে যে,বেশি বয়সে সন্তানের জন্মদিনে মহিলাদের স্মৃতিশক্তি অনেক ভালো হয়। বেশি বয়সে মা হলে সন্তান লেখাপড়ায় বেশি ভালো মনোযোগী হয় বলে সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে। অন্যদিকে বেশি বয়সে মা হলে মহিলারা অনেকদিন বেশি বাচেন বলেও সমীক্ষায় দাবি করা হচ্ছে।