সা’রা ভারতে “খেলা হবে”, মিনিমাম ৩৫০ থেকে ৪০০ আ’স’ন নি’শ্চি’ত, ২৪-র ভবিষ্যৎবাণী অনুব্রতর

তৃণমূলের নজরে এখন ২০২৪ এর লোকসভা নির্বাচন। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে জয়লাভের পর এবার চব্বিশের লোকসভা নির্বাচনেও বিজেপির বিরুদ্ধে জয়লাভ করতে চায় রাজ্য শাসকদল। দেশের শাসনভার বিজেপির থেকে কেড়ে নিয়ে দেশের মসনদে গেরুয়া পতাকা সরিয়ে সবুজ পতাকা উৎক্ষেপণের স্বপ্ন দেখছে তৃণমূল শিবির। তাইতো রাজ্যের বাইরে দেশের অন্যান্য রাজ্যেও ফ্রন্ট গঠনের ডাক দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

মুখ্যমন্ত্রী যেখানে নিজেই বলেছেন সকল রাজ্যের রাজনৈতিক নেতাদের নিয়ে ইউনাইটেড ইন্ডিয়া গঠন করতে চান তিনি, দিল্লি গিয়ে সকলকে নিয়ে মিটিংয়ে বসতে চান তিনি, সেখানে শাসক শিবিরে হেভিওয়েট নেতা-নেত্রীরাও যে মুখ্যমন্ত্রীর পাশে থাকবেন, সেটাই স্বাভাবিক। এবার মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যকে সমর্থন করে তার পাশে এসে দাঁড়ালেন বীরভূমে তৃণমূলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

সম্প্রতি বীরভূমে একটি সাংবাদিক বৈঠকে অংশগ্রহণ করে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, বাংলাতে জিতেছে তৃণমূল। এবার সারা দেশে জিতবে তৃণমূল। সারা দেশে খেলা হবে। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বাংলার খেলায় ফার্স্ট হয়েছে তৃণমূল। এবার সারা ভারতেও তৃণমূলই ফার্স্ট হবে। চব্বিশের লোকসভা নির্বাচনে ৩৫০-৪০০ আসন জয়ের আশ্বাস যুগিয়েছেন তিনি। তার কথা থেকে বেশ স্পষ্ট এই যে, এখন থেকেই যুদ্ধজয়ের প্রস্তুতি শুরু করে দিতে চায় তৃণমূল।

পেট্রোল-ডিজেল এবং গ্যাসের দামের ব্যাপারে কেন্দ্রীয় সরকারের কড়া সমালোচনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। বিরোধী দলগুলোকে এ সম্পর্কে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তোলার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীকেই সমর্থন জানিয়েছেন অনুব্রত মণ্ডল। মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বৃদ্ধির বিরুদ্ধে আগামী দিনে প্রতিনিয়ত মিটিং মিছিল করা হবে বলে জানিয়েছেন অনুব্রত মণ্ডল। একই সঙ্গে আবার পেগাসাস কান্ড নিয়েও কেন্দ্রের সমালোচনা করেছেন অনুব্রত। তার দাবি, যারা রাজনীতি করতে পারেন না তারাই ফোন ট্যাপ করেন।