ডি’ভো’র্স কেন হলো? প্রা’য় তিন মাস পর সামান্থাকে নিয়ে মু’খ খুললেন নাগা চৈতন্য

সামান্থা-রুথ-প্রভু এবং নাগা চৈতন্য বিচ্ছেদের বেশ কয়েক মাস অতিক্রান্ত হয়ে গেছে। দীর্ঘদিনের প্রেম এবং চার বছরের বিবাহিত জীবনে তিনি আলাদা আলাদা পথ বেছে নিয়েছেন তারা। চতুর্থ বিবাহ বার্ষিকীর আগেই তারা নিজেদের এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে দিয়েছিলেন। এতদিনে অভিনেত্রী এই বিষয়ে কথা বললে এবার কথা বলতে শোনা গেল নাগাকে

বিবাহ-বিচ্ছেদের ঘোষণার সময় দুজনেই জানিয়েছিলেন,দীর্ঘ চিন্তাভাবনার পর তারা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন। সম্প্রতি সমান তাকে নিয়ে কথা বলতে গিয়ে অভিনেতা বলেন, আমাদের দুজনের ভালোর জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে ওটাই সেরা সিদ্ধান্ত ছিল। ও খুশি থাকলেই আমি খুশি

বিবাহ বিচ্ছেদের কথা ঘোষণা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় সামান্থা লিখেছেন, অনেক ভাবনাচিন্তার পর আমরা ঠিক করেছি যে আমরা আলাদা পথ বেছে নেব। আমরা ভাগ্যবান যে প্রায় এক দশক ধরে আমাদের বন্ধুত্ব ছিল এবং সেই বন্ধুত্ব চিরকাল থেকে যাবে।

বিচ্ছেদের কারণ হিসেবে কোন কারণ স্পষ্ট করে কেউ জানা নেই তবে শুনতে পাওয়া গিয়েছিল, এটি ছবিতে সামান্তা ঘনিষ্ঠ দৃশ্য এবং আইটেম নাম্বার করতে রাজি হয়েছিলেন বলে তাদের মধ্যে মত বিরোধ শুরু হয় এবং তারপর বিবাহবিচ্ছেদের পথে হেঁটেছিলেন তারা।

ফ্যামিলি ম্যান টু তে সামান্তার যৌন দৃশ্য দেখে নিজেকে ঠিক করে রাখতে পারেননি নাগা চৈতন্য। শ্বশুরবাড়ি এবং স্বামীর সমস্ত নিয়ম অগ্রাহ্য করে বিয়ের পরেও সাহসী দৃশ্যতে এইভাবে অভিনয় করা কেউ মেনে নিতে পারেনি। এই যৌন দৃশ্য দেখে নাকি হতবাক হয়ে গিয়েছিলেন শ্বশুরবাড়ির সকলে। সকলের মত, সামান্থা সকলের বিশ্বাস ভেঙে দিয়েছে। তাই অবশেষে নাগা চৈতন্য বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেন।