প্রচুর বৃ’ষ্টি’পা’ত অথবা ব’জ্র’পা’তে কেনো কই মাছ ভে’সে উ’ঠে? জানুন কারণ

বাঙালি মানেই মাছে-ভাতে। মাছ ছাড়া বাঙালির চলে না। বর্ষাকালে একটা ব্যাপার আপনি লক্ষ্য করেছেন কি?।
আষাঢ়-শ্রাবণ মাসে যখন যখন প্রচন্ড বৃষ্টি হয়, আশেপাশের পুকুর, খাল-বিল থেকে কই মাছ মাটিতে উঠে আসে।মাটির উপর জীবন্ত কই মাছকে লাফা লাফি করতে দেখা যায়।গ্রামের মানুষ এই ঘটনাকে বলে ‘মাছ উজানো’।উজান শব্দের অর্থ হল স্রোতের বিপরীত দিকে যাওয়া।

আপনার মনে কখনো প্রশ্ন জেগেছে কেন এমন হয়?। আসলে এই বিষয়ে জানতে হলে প্রথমে ট্যাক্সিস সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে।ট্যাক্সিস একটা টার্ম; যার অর্থ প্রাণীর দিক মুখিতা। অর্থাৎ বিভিন্ন পরিবেশে (যেমন- তাপ, চা’প, আলো, শব্দ) প্রাণীর ছুটে চলা।বিভিন্ন পরিবেশের দিকে যখন প্রাণী ছুটে চলে, তখন তাকে পজেটিভ ট্যাক্সিস বলে।কই মাছের ট্যাক্সিস হলো পজিটিভ ট্যাক্সিস।কোনো প্রাণী স্রোতের দিকে চললে তাকে রিও ট্যাক্সিস বলে। যাও এক প্রকার পজিটিভ ট্যাক্সিস।

বৃষ্টি হলে পুকুর বা নদীতে জল বেড়ে যায়। তখন স্রোতের দিকে কই মাছ চলতে শুরু করে। আর কই মাছের পাখনা বেশ শক্ত।তাই তারা মাটির উপরেও নড়াচড়া করতে পারে। এগুলো ছাড়াও দীর্ঘদিন বৃষ্টি না হলে পুকুর বা জলাশয়ের জলে অক্সিজেন এবং খাবারের ঘাটতি তৈরি হয়। কই মাছ বৃষ্টির জল পাওয়ায় সে অক্সিজেন ও খাবারের জন্য স্রোতের সঙ্গে রিও ট্যাক্সিসে সাড়া দেয়।