পশ্চিমবঙ্গ কার দ’খ’লে? শুরু হলো ভোট গ’ণ’না

অপেক্ষার অবসান। অবশেষে রবিবার সকাল থেকে শুরু হল একুশের বিধানসভা নির্বাচনী ফলাফলের প্রস্তুতি। রবিবার সকাল থেকেই পশ্চিমবঙ্গের সপ্তদশ বিধানসভা ভোটের গণনা শুরু হলো। তবে আজ শুধু পশ্চিমবঙ্গ নয়, আসাম, তামিলনাড়ু, কেরল, পুদুচেরিতেও ভোট গণনা হতে চলেছে। অর্থাৎ পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, তামিলনাড়ু, কেরল ও পুদুচেরির ভাগ্য গণনা হতে চলেছে আজ।

পশ্চিমবঙ্গের মসনদ দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি এবং তৃণমূল। বাম-কংগ্রেস-আইএসএফ জোটও রয়েছে এই লড়াইয়ে। অতএব টানটান উত্তেজনার মধ্যে রয়েছে রাজ্য-রাজনীতি। এই লড়াইয়ে কার পাল্লা ভারী, কোন দলের বিজয় পতাকা রাজ্যের মসনদ দখল করবে তা জানতে উদগ্রীব সারা রাজ্য। এরই মধ্যে আবার বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের ওপেন পোল এবং রাজনৈতিক দলগুলির বুথ ফেরত সমীক্ষার রিপোর্ট আসছে সামনে।

প্রায় সব বুথ ফেরত সমীক্ষার রিপোর্ট বলছে, পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভার মোট ২৯৪টি আসনের মধ্যে ম্যাজিক ফিগার অর্থাৎ ১৪৮টি আসন পেতে গেলে বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। এবিপি আনন্দ সি ভোটারের সমীক্ষা বলছে এর মধ্যে তৃণমূলের ভাগ্যে জুটবে ১৫২ থেকে ১৬৪টি আসন। বিজেপি পেতে পারে ১০৯ থেকে ১২১টি আসন। সংযুক্ত মোর্চা ১৪ থেকে ২৫টি আসন পেতে পারে।

জি নিউজের সমীক্ষা বলছে, বিজেপি ১৪৪টি আসন, তৃণমূল ১৩২টি আসন এবং সংযুক্ত মোর্চা ১৫টি আসন পেতে পারে। ইন্ডিয়া টুডের সমীক্ষার রিপোর্ট অনুসারে, বিজেপি ১৩৪ থেকে ১৬০টি, তৃণমূল ১৩০ থেকে ১৫৬টি আসন পেতে চলেছে। অর্থাৎ সব সমীক্ষার রিপোর্ট একই ইঙ্গিত দিচ্ছে। এই লড়াইয়ে বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে চলেছে। তবে শেষ হাসি কোন দল হাসবে, তা জানতে হলে ভোটের ফলাফলের লাইভ টেলিকাস্টের উপর নজর রাখতে হবে।