ভারতে কবে মিলবে ক’রোনা টিকা, রাজ্যসভায় জানাল কেন্দ্র

আগামী বছরের গোড়ার দিকেই করোনা ভাইরাসের টিকা পেয়ে যাবে ভারত, বৃহস্পতিবার সংসদের বাদল অধিবেশনে রাজ্যসভায় দাঁড়িয়ে এমনটাই জানালেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন। রাজ্যসভায় দাঁড়িয়ে, করোনা মহামারী সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভূমিকার ভুয়ষী প্রশংসা করে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী যেভাবে মহামারীর পরিস্থিতির উপর সদা সজাগ দৃষ্টি রেখেছেন নিজে, তা ইতিহাস মনে রাখবে।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দাবি অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে একটি বিশেষ কমিটি গড়ে উঠেছে। যে কমিটি ভারতবর্ষে করোনা মহামারী পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে এবং ভবিষ্যতেও করবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, করোনা সম্পর্কে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা তৈরি করে ফেলেছে এই কমিটি। এখন শুধু আর কটা দিনের অপেক্ষা। আগামী বছরের গোড়ার দিকেই ভারতের হাতে করোনা ভাইরাসের টিকা চলে আসবে।

উল্লেখ্য, গত আগস্ট মাসের শেষের দিকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন চলতি বছরের শেষের দিকেই করোনার টিকা পাওয়া যাবে ভারতে। তবে ব্রিটেনে এক স্বেচ্ছাসেবকের শরীরে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেওয়ায় অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির আবিষ্কৃত করোনা ভাইরাস প্রতিরোধী ভ্যাকসিনেরট্রায়াল’ বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয় ভারতের সর্ববৃহৎ ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা সেরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া।

মাঝে কিছুদিন ভ্যাকসিনের ট্রায়াল’ বন্ধ থাকায়, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আগামী বছরের গোড়ার দিক অব্দি সময় বাড়িয়ে নিয়েছেন। গত রবিবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, ভারত এই মুহূর্তে তিনটি ভ্যাকসিনের ট্রায়াল’ চলছে। তবে ২০২১সালের আগে অব্দি ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে না। ২০২১ সালের প্রথম তিন মাসের মধ্যেই কার্যকরী করোনা ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। এছাড়াও বৃহস্পতিবার সংসদের অধিবেশনে তিনি জানিয়েছেন ভারতে এই মুহূর্তে করোনায় মৃত্যুর হার ১.৬৪ শতাংশ। অন্যান্য দেশের তুলনায় যা সব থেকে কম বলে দাবি করেছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য।