কবে আসছে ক’রোনা ভ্যা’কসিন, সুখবর দিল WHO প্রধান

কোনভাবেই নিয়ন্ত্রণে আসছে না মহামারী করোনা। বিগত প্রায় দশ মাস ধরে বিশ্ববাসী মহামারীর বিরুদ্ধে সংগ্রাম করছে। এদের মধ্যে লক্ষাধিক মানুষ আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, অর্থনীতি, মহামারী প্রকোপে বর্তমানে সবই বিপর্যস্ত। বিশ্ববাসী এখন অধীর আগ্রহে করোনা প্রতিরোধী ভ্যাকসিনের জন্য প্রতীক্ষা করছেন। বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশের গবেষকেরা দিনরাত এক করে ভ্যাকসিন সংক্রান্ত গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

ইতিমধ্যে বেশ কয়েকবার গবেষকেরা জানিয়েছেন আগামী বছরের আগে করোনা ভাইরাসের টিকা ব্যবহার করা যাবে না। তবে, বিশ্ববাসীকে আশ্বাস দিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ডিরেক্টর জেনারেল টেডরোস ঘেবরেসাস জানালেন, হয়তো আগামী বছর পর্যন্তও অপেক্ষা করতে হবে না। চলতি বছরের শেষের দিকেই করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন চলে আসতে পারে।

সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফ থেকে এগজিকিউটিভ বোর্ডের একটি মিটিংয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। মিটিং শেষে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান জানালেন, করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই চালানোর জন্য যে ভ্যাকসিন প্রয়োজন, তা হয়তো চলতি বছরের শেষের দিকেই বাজারে চলে আসতে পারে। তিনি আরো জানিয়েছেন, পিফজার, অ্যাস্ট্রাজেনেকার মতো অন্তত দশটি ভ্যাকসিন এই মুহূর্তে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের আশা জাগাচ্ছে।

তবে ভ্যাকসিন আসার পর বিশ্বের প্রতিটি মানুষের কাছে যেন তা পৌছে যায়, অর্থাৎ বিশ্বের প্রতিটি দেশে যাতে ভ্যাকসিনের সমবন্টন হয়, বিশ্বের কাছে তার আবেদন রেখেছেন বিশ্ব সংস্থার প্রধান। উল্লেখ্য, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তাদের কোভ্যাক্স প্রোগ্রামের আওতায় ২০২১ সালের মধ্যে বিশ্বের প্রায় ২ বিলিয়ান মানুষকে ভ্যাকসিন এর টিকা দিতে চাইছে। তবে হু এর এই প্রকল্পে পাশে নেই রাশিয়া, চীন এবং আমেরিকা। এমতাবস্থায় বিশ্বের প্রতিটি দেশকে করোনার বিরুদ্ধে একত্রিত হয়ে লড়াই করার আহ্বান জানিয়েছেন হু এর প্রধান।