সমুদ্রে খুঁজে পেলেন তিমির বমি, রাতারাতি কোটি টাকার মালিক থাইল্যান্ডের এই মহিলা

রাতারাতি বড়লোক হয়ে গেল থাইল্যান্ডের এক মহিলা তাও আবার তিমির বমি পেয়ে। বমি তাও আবার নাকি পেয়ে বড়লোক হয়েছে। সত্যিই ভাবতেই অবাস্তব লাগে কিন্তু এটাই হলো সত্যি। খবর সূত্রে জানা গেছে যে ,৪৯ বছর বয়সের একজন মহিলা যিনি থাইল্যান্ডের বাসিন্দা তার বাড়িটা সমুদ্রের সামনেই।

তিনি সমুদ্রের ধারে রোজ হাঁটতে যান। ওই মহিলার নাম হল সিরিপর্ন নিয়ামরিন। রোজকার মতো যখন তিনি সমুদ্রের ধারে হাটছিলেন হঠাৎ তার চোখ যায় সমুদ্রের দিকে এবং সেখানে তিনি দেখেন যে একটা কোন জিনিস ভেসে চলে আসছে।

তারপর তিনি যখন সে তার কাছে যান তখন দেখেন যে বেশ গন্ধ বেরোছে কিন্তু সেই পদার্থটি আসলে কি সেটা না বুঝতে পেরে তিনি বাড়িতে নিয়ে চলে আসেন। এরপর তিনি ওই আঁশটে গন্ধ আলাদা জিনিসটা সকলকে দেখুন দেখালেন তখন তিনি জানতে পারলেন যে ওটা হল আসলে তিমির বমি, যার দাম ভীষণ।

এই জিনিসটার ভালো নাম হল অ্যামবারগ্রিস। দেখতে অনেকটা সাদাপাথর কিন্তু এটার দাম হল ভীষণ ডলারের দাম প্রায় ২,৫০০০০ টাকা। ভারতীয় মূল্য প্রায় ২ কোটি ৩৩ লক্ষ টাকা। এই অদ্ভুত জিনিসটার নাম হল ভাসমান সোনা। অনেকে এটাকে সমুদ্রের গুপ্তধন হিসেবে মনে করেন। প্রায় ২৪ ইঞ্চি লম্বা এবং ১২ ইঞ্চি পুরু এই জিনিসটা এই জিনিসটা থেকে বাজে গন্ধ পাওয়া গেলেও অবশেষে এই জিনিসটি দিয়ে তৈরি হয় সুগন্ধি যুক্ত জিনিস।

এরকম একটি জিনিস পাওয়ার পরে বলা যায় যে ওই মহিলার ভাগ্য খুলে গেছে। তবে, ওই মহিলা জানিয়েছেন যে এই জিনিসটিকে দিনে বিক্রি করে তার আশেপাশে থাকা মানুষদের তিনি উপকার করবেন।