মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক, এবার বিশেষ আইন করছে রাজস্থান সরকার

দেশজুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা উত্তরোত্তর বাড়ছে বৈ কমছে না। দীর্ঘ সাত মাস কেটে গেলেও এখনো করোনার গুরুত্ব সম্পর্কে উদাসীন বহু মানুষ। সরকারের তরফ থেকে প্রচারিত মাস্ক এবং স্যানিটাইজার ব্যবহার করা, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে নারাজ অনেকেই। ফলস্বরূপ, দেশে এখনও প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। এমতাবস্থায় মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করতে নতুন আইন আনলো মহারাষ্ট্র সরকার।

উল্লেখ্য, মহারাষ্ট্র, গুজরাট, তামিলনাড়ুর মতো বেশ কয়েকটি রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি প্রথম থেকেই স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের কপালে ভাঁজ ফেলছে। তবুও একদল মানুষ ভিড় বহুল এলাকাতে মাস্ক পড়ে চলাকে স্রেফ এড়িয়ে চলছেন। তাই করোনার বিরুদ্ধে লড়তে এবার “শুদ্ধ কে লিয়ে যুদ্ধ” এর ঘোষণা করলো মহারাষ্ট্রের অশোক গেহলটের সরকার। মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট সম্প্রতি এ সংক্রান্ত একটি টুইট প্রকাশ করেছেন।

টুইট বার্তায় মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, সোমবার থেকেই মাস্ক পরা সম্বন্ধিত নতুন আইন লাগু হতে চলেছে সে রাজ্যে। নতুন আইন অনুসারে, “নো মাস্ক নো এন্ট্রি” নীতি মেনে চলতে হবে রাজ্যবাসীকে। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এখন মাস্কই হলো প্রধান ভ্যাকসিন। তিনি আরো বলেছেন, রাজ্যে এখন করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চলছে। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি সরকারও এই লড়াইয়ের সমান অংশীদার।

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে করোনার দ্বিতীয় ওয়েভ দেখা দিয়েছে। এমতাবস্থায়, প্রথম থেকেই সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন। তিনি আরো জানালেন, রাজ্যের করোনা মোকাবিলার জন্য শীঘ্রই আরো ২০০০ চিকিৎসক নিয়োগ করবে সরকার। উল্লেখ্য, গত রবিবার রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে প্রশাসনের শীর্ষস্থানীয় আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী।