জারি সতর্কতা, উত্তর ভারত সহ দক্ষিণবঙ্গ কাঁপবে ঠান্ডায়, জেনে নিন কি বললো আবহবিদরা

মাঘ মাসের শুরু থেকেই প্রবল শীতের কবলে উত্তর ভারত। উত্তর-পশ্চিমে অবশ্য তুষারপাতের প্রবণতা কমেছে। তবে শৈতপ্রবাহের ধারা এখনো অব্যাহত। যার ফলে রাজধানী দিল্লি এখন প্রবল শীতের দাপট অনুভব করছে। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, উত্তর ভারতের তাপমাত্রা এখনি নিচের দিকে নামার কোনো সম্ভাবনা নেই। বরং তাপমাত্রা আরও দুই থেকে তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

দিল্লির পাশাপাশি বিহার এবং উত্তর প্রদেশের বাসিন্দারাও প্রবল শীতে কাঁপছেন। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, ১৬-২০শে জানুয়ারি পর্যন্ত শীতের দাপট এমনই থাকবে। পুসা আবহাওয়া দপ্তরের রিপোর্ট অনুযায়ী, বিহার এবং উত্তর প্রদেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশে পাশে থাকবে। অপর পক্ষে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৬ থেকে ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যেই ঘোরাফেরা করবে বলে জানানো হয়েছে।

আইএমডির রিপোর্ট অনুযায়ী, পশ্চিমবাংলায় থেকে শুকনো বাতাস প্রবেশ করছে উত্তর ভারতে। যার জেরে উত্তর ভারতের রাজ্যগুলির তাপমাত্রা কমছে। এরমধ্যে রাজধানী দিল্লির তাপমাত্রাই সব থেকে কম রেকর্ড করা হয়েছে। এদিকে উত্তর প্রদেশ, পঞ্জাব, হরিয়ানা, চণ্ডীগড়, দিল্লি, বিহার, উপ-হিমালয়, পশ্চিমবঙ্গ, অসম এবং ত্রিপুরা ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন হয়ে রয়েছে। যার জেরে স্থানীয় বাসিন্দারা বেশ সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন।

আগামী তিন থেকে চারদিন কুয়াশার দাপট আরও বাড়তে পারে বলে জানানো হয়েছে। এদিকে দক্ষিণ ভারতের তামিলনাড়ু, পুডুচেরি, করাইকাল, কেরালা, মাহে এবং লক্ষদ্বীপ অঞ্চলে আগামী দু’দিনের মধ্যেই বজ্রবিদ্যুৎসহ প্রবল বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা জানানো হয়েছে। আজ কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৪.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে যা এক ডিগ্রি কম।