যুদ্ধজয়!, ইতালি তৈরি করলো করোনার ভ্যাকসিন

যেখানেই দেখিবে ছাই উড়াইয়া দেখ তাই, পাইলেও পাইতে পারো অমূল্য রতন’- এই প্রবাদ বাক্যটি এখন খুবই প্রযোজ্য করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক টিকা আবিষ্কারে রত বৈজ্ঞানিকদের ক্ষেত্রে। করোনার টিকা আবিষ্কারের জন্য দিনরাত এক করে আপ্রাণ প্রচেষ্টা চালাচ্ছে বিশ্বের তাবড় তাবড় বিজ্ঞানীরা। এই সংক্রমনের প্রতিষেধক টিকা আবিষ্কার করতে গিয়ে বৈজ্ঞানিকদের সামনে যদি কোন বিষয় উঠে আসে যে বিষয়টি দ্বারা করোনাকে দমন করা সম্ভব হবে। সেই বিষয়টিকে নিয়েই বৈজ্ঞানিকরা নানা ধরনের পরীক্ষা- নিরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছেন। এবার খবর পাওয়া গেছে ইতালির বৈজ্ঞানিকরা করোনার প্রতিষেধক আবিষ্কার করতে সফল্য অর্জন করেছেন।

আমেরিকাতে এর আগে পরীক্ষামূলক টিকা মানব দেহে প্রবেশ করানো হয়। টিকা নেওয়া সবাই সুস্থ। তবে সেটিও পরীক্ষামূলক অবস্থায় আছে। জাপান ও কিউবা তাদের আবিষ্কৃত একটি করে ওষুধের দাবি করেছে। ইংল্যান্ডের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরাও শিম্পাঞ্জি ও বাঁদরের দেহে জীবাণু ঢুকিয়ে টিকা বের করতে মরিয়া।ইতালির সংবাদসংস্থার খবরে বলা হয়েছে, টাকিস নামে একটি সংস্থা একটি করোনার ভ্যাকসিন তৈরি করেছে।ইঁদুরের দেহে করোনাভাইরাসের অ্যান্টিবডি তৈরি করার পর তা মানব কোষেও কাজ করেছে। রোমের স্প্যালানজানি হাসপাতালে বিশেষজ্ঞরা করোনার প্রতিষেধকটি তৈরি করেছেন।

আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের রিপোর্ট অনুসারে এই টিকা ইঁদুরের শরীরে প্রয়োগ করে সাফল্য পাওয়া গেছে। এবার এটি মানব দেহেও প্রয়োগ করলে সফলতা মিলবে।এটি এখন পর্যন্ত বিশ্বে প্রথম ভ্যাকসিন যা করোনাকে প্রতিহত করার প্রমাণ দিয়েছে।
আবার ইজরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নাফতলি বেনেট জানিয়েছেন যে ইজরায়েল ইনস্টিটিউট ফর বায়োলজিকাল রিসার্চ (IIBR) একটি অ্যান্টিবডি তৈরি করেছে যা রোগীর শরীরের মধ্যেই করোনা রোগের ভাইরাসকে প্রতিহত করতে পারে। বেনেটের জানান, তিনি যখন পরীক্ষাগার পরিদর্শন করতে গেছিলেন তখন তাঁকে অ্যান্টিবডি দেখানো হয়েছিল যা ভাইরাসে আক্রমণ করে দেহের মধ্যে সেটি প্রতিহত করতে পারে।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন