প্রিয়জনের সিগারেট খাওয়া ছাড়াতে চান? জানুন কিছু ঘরোয়া টোটকা

যে কোন অনুষ্ঠান সিনেমা কিংবা সিরিয়াল শুরু হওয়ার আগে এই এক কথা একেবারে ধরা বাধা থাকে যে, ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক এতে ক্যান্সার হয়।কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা ধূমপানের আরো অনেক ক্ষতিকারক দিক রয়েছে। ধূমপানের কারণে শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা এমনকি কার্ডিও সমস্যাও দেখা যায়। এই ধূমপানের অভ্যাস দারুণভাবে ক্ষতিকর মানুষের জন্য। তাছাড়া যে ধূমপান করে তারই শুধু ক্ষতি হচ্ছে এমন কিন্তু নয়, একজন অ্যাক্টিভ স্মোকার কিন্তু শুধু নিজের ক্ষতি নয় আশেপাশের মানুষদের যারা ধূমপান করছে না অর্থাৎ প্যাসিভ স্মোকারদের দারুন ক্ষতি করছে।

তাদের ফুসফুসে ধোয়া প্রবেশ করছে, যার ফলে একজন অ্যাক্টিভ স্মোকারের কারণে পরিবার-পরিজন এমনকি আশেপাশের মানুষদের দারুন ক্ষতি হচ্ছে। ধূমপান এমন এক ধরনের ক্ষতিকর অভ্যাস যা কিনা চেষ্টা করেও আমরা ত্যাগ করতে পারিনা। প্রতি বছর আমরা মার্চ মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে নো স্মোকিং ডে পালন করি। এই দিনের মূল উদ্দেশ্য মানুষকে ধূমপানের হাত থেকে রক্ষা করা।যারা কিনা অনেক চেষ্টা করেও ধূমপান ত্যাগ করতে পারে না তাদের জন্য রয়েছে বিভিন্ন কিছু টিপস।

প্রথমেই ধূমপান ত্যাগ করার জন্য নিজের হাতের সামনে থেকে দেশলাই গ্যাস লাইট অ্যাশট্রে সবকিছু দূরে রাখতে হবে।
তাছাড়া নিজের কাজের ফাঁকে গান শোনা ভিডিও দেখার মাধ্যমে ধূমপান কতটা ক্ষতিকারক সেই ধরনের কিছু তথ্য সংগ্রহ করতে হবে। ধূমপান ত্যাগ করার জন্য শারীরিক ব্যায়াম খুবই প্রয়োজনীয়, এতে মনের চঞ্চলতা দূর হয় ধূমপানে আসক্তি কমে যায়।

অনেকেই ধূমপান ত্যাগ করার জন্য নিকোটিন থেরাপি নিয়ে থাকে দরকার পরলে সেটাও নেওয়া যেতে পারে। এই সমস্ত টিপস ছাড়াও রয়েছে আরও বিভিন্ন ধরনের টিপস, তবে আপনি চাইলে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবীদের সাথে যুক্ত হওয়ার জন্য হেল্পলাইনে ফোন করে ধূমপান ত্যাগ করতে পারেন।।