নন্দীগ্রামে ভোট প্রহসনে পরিণত হয়েছে, আদালতে যাওয়ার পরিকল্পনা মমতার

এই মুহূর্তে রাজ্যের হাইভোল্টেজ কেন্দ্রের তকমা পেয়েছে নন্দীগ্রাম। আর হবে নাই বা কেন? খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অস্তিত্বের সংগ্রাম চলছে যে বিধানসভা কেন্দ্রটিকে কেন্দ্র করে তাকে ঘিরে উত্তেজনা থাকতে বাধ্য। সেই নন্দীগ্রামের নির্বাচন চলছে আজ। নন্দীগ্রামের নির্বাচন প্রসঙ্গে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মমতার অভিযোগ, নন্দীগ্রামে বহিরাগতদের দিয়ে ভোট করানো হচ্ছে। কেন্দ্রীয় বাহিনী তাদের সাহায্য করছে। তিনি সব জানতে পেরেছেন। তিনি বিষয়টি নির্বাচন কমিশনের গোচরেও এনেছেন। তবে তাতে লাভ কিছুই হয়নি। কারণ নির্বাচন কমিশন নির্বিকার। শুধু নির্বাচন কমিশনের কাছে নয়। নন্দীগ্রাম প্রসঙ্গে নিজের অভিযোগ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরের দ্বারস্থ হয়েছেন।

ফোন মারফত রাজ্যপালকে নিজের অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি। শুধু তাই নয়, এদিন সংবাদমাধ্যমের কাছে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে তিনি জানান, নন্দীগ্রামে ভোটের নামে প্রহসন চলছে। সকাল থেকে অন্তত ৬৩টি অভিযোগ ধরা পড়েছে। তিনি নিজে সকাল থেকে বারংবার নির্বাচন কমিশনকে ফোন করেছে। নিজের অভিযোগ জানিয়েছে।তাও কমিশনের তরফ থেকে কোনো বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি।

মুখ্যমন্ত্রীর বিস্ফোরক অভিযোগ, নন্দীগ্রামে ছাপ্পা ভোট চলছে। ৮০ শতাংশ ছাপ্পা ভোট করিয়ে নেওয়া হয়েছে সেখানে! বহিরাগতদের নিয়ে ভোট করানো হচ্ছে! তার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হলে তিনি আদালতের দ্বারস্থ হবেন বলে হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন।