বিবেকহীন পুলিশ, বাড়ি ফিরতে চেয়ে কাতর আবেদন পরিযায়ী শ্রমিকের, জুটলো লাথি

চীন দেশ থেকে আবিষ্কৃত হওয়া করোনাভাইরাস নিশ্চিত কোনো প্রতিষেধক টিকা আবিষ্কার না হওয়ায় লকডাউন করেই এই ভাইরাসের সংক্রমণকে দমন করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। লকডাউন এর ফলে যে সমস্ত কর্মচারীরা বাইরের রাজ্যে বা বাইরের দেশে কর্মসূত্রে থাকেন তারা ওই কর্মস্থলে আটকে পড়েছেন লকডাউন এজন্য কল কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ার ফলে তারা আর্থিক অনটনের মধ্যে দিন যাপন করছেন খাবারও ঠিকঠাক পাওয়া যাচ্ছে না।

এমনই কিছু শ্রমিক ব্যাঙ্গালোরে কর্মসূত্রে থাকার ফলে আটকে পড়েছেন এই লকডাউনের জেরে। আসতে পারছেন না পরিবার-পরিজনের কাছে । তাদের বাড়ি উত্তরপ্রদেশে।বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা করার জন্য পুলিশের কাছে দাবি করছিলেন পরিযায়ী শ্রমিকরা।কেজি হাল্লি থানার সামনে তাঁরা জড়ো হয়েছিলেন তাদের দাবি নিয়ে। মিলেছে এক পুলিশ অফিসারের লাথি। এই ঘটনার ভিডিয়ো ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তার পর ওই অফিসারকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

প্রথমে অ্যাসিট্যান্ট সাব ইনস্পেক্টর রাজা সাহেব তাঁদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু শ্রমিকরা তাঁদের দাবিতে অনড় থাকতেই মেজাজ হারান ওই অফিসার। ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে, তিনি দু’জন শ্রমিককে চড় ও লাথি মারছেন।

ওই সাব ইনস্পেক্টরকে সাসপেন্ড করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন এসডি শারানাপ্পা নামের এক সিনিয়র পুলিশ অফিসার। তিনি বলেছেন, ‘‘অ্যাসিট্যান্ট সাব ইনস্পেক্টরকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত শুরু করা হয়েছে।’’

ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের লকডাউন এর জেরে পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশার চিত্র প্রকট হয়ে উঠেছে। টাকা ও খাবারের অভাবের কথা ফুটে উঠেছে বিভিন্ন ভিডিয়োতে। বাড়ি ফেরার আশায় মাইলের পর মাইল হেঁটে পাড়ি দিতে দেখা গিয়েছে বহু শ্রমিকদের। সেই পথ পাড়ি দিতে গিয়ে কোথাও ট্রেন তো কোথাও লরি কেড়ে নিয়েছে তাদের প্রাণ। পরিযায়ী শ্রমিকদের প্রতি প্রশাসনের উদাসীনতার অভিযোগও এনেছেন নেটাগরিকদের একাংশ।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন