চ’ল’ন্ত ট্রেন থেকে নি’চে লাফালেন দুই মহিলা, এরপর যা হলো, রইলো ভিডিও

ট্রেন হল যাতায়াতের এক অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। যেহেতু ট্রেনের খরচা বাকি যানবাহনের তুলনায় অনেকটাই কম তাই বেশিরভাগ লোকই ট্রেনে করে অফিস আদালত থেকে শুরু করে বিভিন্ন জায়গায় যাতায়াত করে। অন্যান্য যাতায়াতের মাধ্যম গুলো ছিল খরচাসাপেক্ষ। ট্রেনে করে কম খরচায় যতদূর ইচ্ছে যাতায়াত করা যায়। তাই বেশিরভাগ মানুষেই যাতায়াতের মাধ্যম হিসেবে ট্রেনটাকেই পছন্দ করে। করোনার সময় বহুদিন ট্রেন বন্ধ ছিল। তাই মধ্যবিত্ত থেকে নিম্নবিত্ত সকলেরই যাতায়াতে খুব অসুবিধে হচ্ছিল। এখনও আগের মতো স্বাভাবিক হয়নি ট্রেন চলাচল।

তবে ট্রেনে অনেক দুর্ঘটনাও ঘটে। এই দুর্ঘটনা কেড়ে নেয় অনেক প্রাণ। যেহেতু বেশিরভাগ মানুষই ট্রেনে করে যাতায়াত করা পছন্দ করেন তাই স্বাভাবিকভাবেই ট্রেনে ভিড় বেশি হয়। এই ভিড়ে ধাক্কাধাক্কি এর কারণে অনেকে পড়ে গিয়ে মারাও যান।

https://www.facebook.com/100003188334844/videos/3361207727328805/

অনেকে আবার নিজের দোষেই প্রাণ হারান। ট্রেনের দরজার সামনে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে ঝুঁকতে থাকেন। এরফলে ট্রেন থেকে পড়ে গিয়ে অনেকের মৃত্যু ঘটে। এইসব উল্টোপাল্টা কাজকর্ম অত্যন্ত ক্ষতিকর এবং এগুলি একটা মূল্যবান প্রাণ কেড়ে নেওয়ার জন্য যথেষ্ট।

বেশ কিছুদিন আগে এরকম একটি ভিডিও ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই ভিডিওটিতে দেখা যায় যে দুই মহিলা ট্রেনের দরজায় দাঁড়িয়ে রীতিমতো ঝুলছেন। পরক্ষণেই দেখা যায় তারা একে একে ট্রেনের দরজার রড ধরে ট্রেন থেকে লাফ দিয়ে স্টেশনের বাইরে নেমে যান।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্য এভাবে ট্রেন থেকে ঝাঁপ দিয়ে নামার কারণে নানা মানুষ প্রতিদিন প্রাণ হারায়। হয়তো মহিলাগুলির কোনো টিকিট ছিল না, তাই চেকিং-এর ভয়ে নেমে গেছেন – অনেকে এমনটাও দাবি করেছেন। সামান্য কটা টাকার জন্য নিজের পুরো জীবন বাজি লাগাতেও এরা এক মুহুর্ত ভাবেন না। তাদের এরকম জঘন্য কাজকে অনেকেই নিন্দা করেছেন।