ক্যানসার চিকিৎসার নয়া দিশা দেখিয়ে নোবেল পেলেন দুই মহিলা গবেষক

বিশ্বে যত রকমের প্রাণঘাতী রোগ আছে, তার মধ্যে সবথেকে ভয়াবহ হলো ক্যান্সার। এই রোগের কোনো উপযুক্ত চিকিৎসা নেই। অথচ বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ এবং তাদের পরিবার এই রোগের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে সম্প্রতি দুই মহিলা গবেষক এমন এক প্রযুক্তি আবিষ্কার করলেন যেখানে জিন থেরাপি ব্যবহার করে ক্যান্সার চিকিৎসা সম্ভব। আর এই পদ্ধতি আবিষ্কার করেই এবছরের রসায়নে নোবেল পুরস্কার ছিনিয়ে নিলেন তারা।

মার্কিন গবেষক জেনিফার এ দৌদেনা ও ফরাসি গবেষক ইম্যানুয়েল চারপেন্টার যৌথভাবে জিনের সম্পাদনা অর্থাৎ জিনের পরিবর্তন ঘটিয়ে এই বিশেষ প্রযুক্তি আবিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছেন। যা ক্যান্সার চিকিৎসায় নতুন পথ দেখাবে। তাদের এই গবেষণাকে স্বীকৃতি দিল দ্য রয়্যাল সুইডিশ অ্যাকডেমী। সম্প্রতি, ২০২০ সালে রসায়নে নোবেল প্রাপকের নাম হিসেবে জেনিফার এবং ইম্যানুয়েলের নাম ঘোষণা করা হলো।

নোবেল কমিটির তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ইম্যানুয়েল চারপেন্টার এবং জেনিফার এ দৌদেনার জিন সংক্রান্ত গবেষণার ফলে এক নতুন দিক উন্মোচিত হয়েছে। তারা তাদের গবেষণার মাধ্যমে জিন সম্পাদনার আধুনিকতম প্রযুক্তি CRISPR/ক্যাস ৯ সিসর আবিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছেন। এই প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে যেকোনো প্রাণী এবং উদ্ভিদের ডিএনএর পরিবর্তন ঘটানো সম্ভব। যার ফলে ক্যান্সার সহ যেকোনো জটিল ক্রনিক রোগের চিকিৎসা সম্ভব হবে।

নোবেল কমিটির দাবি, ক্যান্সারের চিকিৎসা সংক্রান্ত যেকোন থেরাপিতে এই প্রযুক্তি কাজে লাগানো যাবে। পাশাপাশি উদ্ভিদের বংশ বিস্তারের ক্ষেত্রেও এই প্রযুক্তি অত্যন্ত ফলদায়ী হবে। উল্লেখ্য, ফ্রান্সের বাসিন্দা ইম্যানুয়েল চারপেন্টার বর্তমানে জার্মানির বার্লিনের ম্যাক্স প্ল্যাঙ্ক বিশ্ববিদ্যালেয়র প্যাথোজেন শাখার ডিরেক্টর হিসেবে নিযুক্ত। পাশাপাশি, ওয়াশিংটনের বাসিন্দা জেনিফার এ দৌদেনা বর্তমানে আমেরিকার ইউসি বার্কলে বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক হিসেবে নিযুক্ত আছেন।