নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হলেন ট্রাম্প

২০২১ সালের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাকে নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত করেছেন নরওয়ের এক সাংসদ। সাংসদের যুক্তি, ইজরায়েল ও সংযুক্ত আরব আমিরশাহির মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভূমিকা অপরিসীম। তাই অবশ্যই মার্কিন প্রেসিডেন্টের শান্তি পুরস্কার পাওয়াই উচিত।

উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বরাবরই নিজেকে নোবেল শান্তি পুরস্কারের দাবীদার হিসেবে মনে করেন। বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠা করার জন্য তিনি যা যা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন, তার বিচারেই নিজেকে নোবেল শান্তি পুরস্কারের দাবীদার হিসেবে মনে করেন তিনি। বলা বাহুল্য, মার্কিন প্রেসিডেন্টের এহেন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্বে তাকে নিয়ে কম রসিকতা হয়নি।

এতদিনে, তার সেই স্বপ্ন পূরণ হওয়ার পথে এক ধাপ এগোল। নিয়ম অনুসারে, নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য প্রায় কয়েক হাজার ব্যক্তি নিজেদের পছন্দের ব্যক্তিত্বকে মনোনীত করতে পারেন। সরকার বা সংসদের সদস্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক বা প্রাক্তন নোবেলজয়ী ব্যক্তিগণ নিজেদের পছন্দের ব্যক্তিত্বের নাম মনোনীত করতে পারেন। ২০০৯ সালে নোবেল শান্তি পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

সেই নিয়ম অনুসারেই, নরওয়ের সাংসদ তাইব্রিং জেড্ডে তার পছন্দের ব্যক্তিত্ব ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মনোনীত করেছেন। নরওয়ের নোবেল কমিটি অবশ্য এই নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চায়নি। উল্লেখ্য, তাইব্রিং ২০১৯ সালেও ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার ও উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক মজবুত করার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্টকে নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত করেছিলেন। তবে, সেবার মনোনীত হলেও নোবেল শান্তি পুরস্কার লাভ করতে পারেননি মার্কিন প্রেসিডেন্ট।